শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

জয় দিয়েই আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরল বাংলাদেশ

প্রথম ওয়ানডে ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানোর পর টাইগারদের উল্লাস -সংগ্রাম

ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ১২২ (৩২.৩ ওভার) বাংলাদেশ : ১২৫/৪ (৩৩.৫ ওভার)
বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জয়ী
রফিকুল ইসলাম মিঞা : দীর্ঘ ১০ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেই বড় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে প্রথম ম্যাচেই বাংলাদেশ জয় পেয়েছে ৬ উইকেটে। ফলে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশ এগিয়ে গেল ১-০ ব্যবধানে। এছাড়া এই জয়ে বাংলাদেশ অর্জন করলো ১০ পয়েন্ট। যা ২০২৩ বিশ্বকাপে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ সাত দলে থেকে সরাসরি খেলার জন্যও কিছুটা সহায়ক হবে। অবশ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের এই জয়টা প্রত্যাশিত ছিল। কারণ নতুন এক দল নিয়ে মাঠে নেমেছিল সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যে দলে ছিল ৬ জন নতুন খেলোয়াড়। তাই ব্যাটে বলে আধিপত্য বজায় রেখেই জয় পেয়েছে টাইগাররা। আগে ব্যাট করে টাইগার বোলারদের সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তুলতে পারে মাত্র ১২২ রান। দলটি খেলতে পারেনি পুরো ৫০ ওভার। সাকিব, হাসান মাহমুদ আর মোস্তাফিজের বোলিং আক্রমণে মাত্র ৩২.২ ওভারেই দলটি হয়েছে অলআউট। জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে টার্গেট ছিল মাত্র ১২৩ রান। ১২৩ রান তুলে জয় পেতে বাংলাদেশকে খেলতে হয়েছে ৩৩.৫ ওভার। হারাতে হয়েছে ৪ উইকেট। অবশ্য আরো বড় ব্যবধানে জয় পেতে পারত টাইগাররা। আরো কম ওভারেও ম্যাচটি জিততে পারত । কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলাররা বাংলাদেশের সহজ জয়টা কঠিন করে দিয়েছে। বিশেষ করে স্পিনার আকিল হোসেন একাই গুরুত্বপূর্ণ তিন উইকেট নিয়ে চাপে ফেলার চেষ্টা করেছেন। এছাড়া ওপেনার লিটন দাসও রানটা ভালো করতে পারেনি। না হলে আরো বড় ব্যবধানে জয় পেতে পারত টাইগাররা। জয়ের জন্য ১২৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। দু’ওপেনার লিটন আর তামিম ইকবাল বিনা উইকেটে পাওয়ার প্লেতে বাংলাদেশ তুলে নিয়েছিল ৩৯ রান। কিন্তু ১৪তম ওভারে বামহাতি স্পিনার আকিল হোসেনের বোলিংয়ে টিকতে পারেননি ওপেনার লিটন দাস। মাত্র ১৪ রানে ফিরেছেন বোল্ড হয়ে। ফলে ৪৭ রানে বাংলাদেশ হারায় প্রথম উইকেট। ওয়ান ডাউনে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য ভালো করতে পারেননি নাজমুল হাসান শান্ত। সাকিবের বদলে তিনে নেমেছিলেন শান্ত। কিন্তু দলীয় ৫৭ রানে সেই আকিলের স্পিনে আউট হয়ে ফিরে গেছেন ১ রানে। শান্তর বিদায়ে তামিমের সাথে জুটি করেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু দলীয় ৮৩ রানে ফিরতে হয় অধিনায়ক তামিম ইকবালকে। ব্যক্তিগত ৪৪ রানে একটি ভুল করে বসেন তামিম। জেসনের বলে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন তামিম। স্টাম্প ভেঙে দিয়ে তাকে সাজঘরের পথ দেখিয়েছেন ডা সিলভা। তবে তামিমের করা ৪৪ রানই ছিল দলের সর্বোচ্চ স্কোর। তামিমের বিদায়ে মুশফিকুর রহিম-সাকিব আল হাসান মিলে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। কিন্তু সাকিবকে বিদায় দিয়ে বাংলাদেশের ওপর কিছুটা চাপ সৃষ্টি করেন আকিল হোসেন। ১৯ রান করা সাকিব ফেরেন বোল্ড হয়ে। অবশ্য জয় পেতে কিছুটা সময় নিয়ে খেলতে থাকেন মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিকুর রহিম। শেষ পর্যন্ত এ দুজনের ব্যাটে ভর করেই বাংলাদেশ জয় নিশ্চিত করেছে ৩৩.৫ ওভারে। মুশফিক ১৯ রানে আর মাহমুদউল্লাহ ৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১২২ রানে অলআউট হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দলের পক্ষে রোভম্যান পাওয়েল ও কাইল মেয়ার্স ছাড়া কোন ব্যাটসম্যানই ভালো করতে পারেননি। টাইগার বোলারদের কঠিন বোলিংয়ের সামনেও ৫৯ রানও তুলে ফেলেছিল এই জুটি। ক্যারিবীয়দের এই প্রতিরোধ ভেঙেছেন অবশ্য অভিষিক্ত পেসার হাসান মাহমুদ। পাওয়েলকে গ্লাভসবন্দি করিয়েছেন মুশফিকের। অভিষেকের দিনেই চমক দেখিয়েছেন হাসান মাহমুদ। তিনি ২৮ রানে নিয়েছেন তিন উইকেট। অপর দিকে নিষেধাজ্ঞা শেষে নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে ফেরা সাকিব ছিলেন আরো উজ্জল। মাত্র ৭.২ ওভারে মাত্র ৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। যা ছিল ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে বাংলাদেশের কারো সেরা বোলিং। ম্যাচসেরাও হয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের হয়ে আরও দুটি উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজ। মিরাজ নিয়েছেন এক উইকেট। ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেছেন কাইল মায়ার্স। রোভমান পাওয়েল করেন ২৮ রান। জেমস ১৭ আর ম্যাককার্থি করেন ১২ রান। এই চার ব্যাটসম্যান দু-অংকে রান করতে পেরেছেন। অবশ্য অনাকাংক্ষিত বৃষ্টির কারণে মাঠে প্রায় এক ঘন্টা খেলা বন্ধ ছিল।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৩২.২ ওভারে ১২২ (আমব্রিস ৭, যশুয়া ৯, ম্যাককার্থি ১২, জেসন ১৭, মেয়ার্স ৪০, বনার ০, পাওয়েল ২৮, রিফার ০, জোসেফ ৪, আকিল ১, হোল্ডার ০*; রুবেল ৬-০-৩৪-০, মুস্তাফিজ ৬-০-২০-২, হাসান ৬-১-২৮-৩, সাকিব ৭.২-২-৮-৪, মিরাজ ৭-১-২৯-১)।
বাংলাদেশ: ৩৩.৫ ওভারে ১২৫/৪ (লিটন ১৪, তামিম ৪৪, শান্ত ১, সাকিব ১৯, মুশফিক ১৯*;, মাহমুদউল্লাহ ৯*; জোসেফ ৮-৩-১৭-০, হোল্ডার ৩-০-২৬-০, আকিল ১০-১-২৬-৩, জেসন ৮-০-১৯-১, ম্যাককার্থি ২-০-১০-০, বনার ২.৫-০-১৫-০)।
ফল: বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জয়ী
সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে
ম্যান অব দা ম্যাচ: সাকিব আল হাসান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ