বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

বরিশাল মহানগরীর মাওলানা আবদুল খালেকের ইন্তিকাল

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী বরিশাল মহানগরীর বন্দর থানা শাখার সদস্য (রুকন) মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল খালেক গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে ৫০ বছর বয়সে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তিনি ২ পুত্র ও ১ কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। গতকাল বুধবার বাদ যুহর তার নিজ বাড়িতে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এডভোকেট মুয়ায্যম হোসাইন হেলাল, বরিশাল মহানগরী শাখার আমীর জহির উদ্দিন মুহাম্মাদ বাবর ও মহানগরী সেক্রেটারি মাওলানা মতিউর রহমানসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও বহু মুসুল্লী জানাযায় শরীক হন।  
শোকবাণী: মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল খালেকের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান শোকবাণী দিয়েছেন।
শোকবাণীতে তিনি বলেন, মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল খালেক (রাহিমাহুল্লাহ)-কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও রহম করুন এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাহখাতাগুলোকে ক্ষমা করে দিয়ে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন।
শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।
সিরাজগঞ্জের খন্দকার আবদুর রাজ্জাকের ইন্তিকাল: জামায়াতে ইসলামী সিরাজগঞ্জ জেলার এনায়েতপুর থানা শাখার সদস্য (রুকন) খোকশাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা খন্দকার আবদুর রাজ্জাক গত মঙ্গলবার রাত পৌণে ১১টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৭০ বছর বয়সে ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তিনি ১ স্ত্রী ও ৫ কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। গতকাল সকাল ৮টায় জানাযা শেষে তাকে খোকশাবাড়ি কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
শোকবাণী: খন্দকার আবদুর রাজ্জাকের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান শোকবাণী দিয়েছেন।  
শোকবাণীতে তিনি বলেন, খন্দকার আবদুর রাজ্জাকের ইন্তিকালে আমরা ইসলামী আন্দোলনের একজন নিবেদিত প্রাণ দাঈকে হারালাম। আমি তার ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি ইসলামী আন্দোলনের প্রচার ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গিয়েছেন। তিনি সংগঠনের সকল কাজ যথাযথভাবে আঞ্জাম দেয়ার চেষ্টা করতেন। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতের মেহমান হিসেবে কবুল করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ