রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

ভারত যে ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে তা আগে ভিআইপিরা নেন -বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার : করোনার ভ্যাকসিন আগে ভিআইপিদের নিতে বলেছে বিএনপি। গতকাল বুধবার সকালে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই দাবি জানান। তিনি বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, যে ভ্যাকসিন আসছে এটা ভিআইপিরা আগে পাবে না। ও ভিআইপিরা আগে দেখবেন গরীব মানুষের ওপর প্রয়োগ করে, গরীব মানুষ গিনিপিগ নাকী। আগে ভ্যাকসিন দিয়ে দেখবেন ওরা মরে না বাঁচে। আমাদের কথা হলো, ভারত যে ভ্যাকসিন উপহার হিসেবে পাঠাচ্ছে তা আগে ভিআইপিরা নেন। নিয়ে দেখেন কী প্রতিক্রিয়া হয়। তারপরে সাধারণ মানুষের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেন।
নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সারাদিন ব্যাপী ‘বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ বিতরণের এই অনুষ্ঠান হয়। জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানের সভাপতিত্বে ও সরকার মাহবুব আহমেদ শামীমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিএনপির আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল খালেক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক  অধ্যাপক কামরুল আহসান, অধ্যাপক নুরুল ইসলাম, ছাত্র দলের ইকবাল হোসেন শ্যামল, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ছাত্র দলের গালিব হাসান, রাকিবুল ইসলাম আকাশ প্রমূখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
রিজভী বলেন, ভিআইপি কে? মন্ত্রী, ভিআইপি কে? এমপিরা, ভিআইপি কে? আমলারা। আগে গরীব মানুষের ওপর প্রয়োগ করবেন। ভারতে আপনার এই ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে মারা গেছেন কয়েক জায়গায়। যদিও সেখানকার মেডিকেল অফিসার বলছেন যে, এটা ভ্যাকসিনের কারণে না। কিন্তু ভ্যাকসিন দেয়ার পর তো মারা গেছেন। যদি পরিস্থিতি এই হয় তাহলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আপনি এদেশের মানুষকে পার্শ্ববর্তী দেশের ভ্যাকসিনের গবেষণার টেস্ট হিসেবে গরীব মানুষকে ব্যবহার করবেন না, গিনিপিগ হিসেবে ব্যবহার করবেন না। আগে নিজেরা নিয়ে দেখেন। আপনাদের শরীরে কি প্রতিক্রিয়া হচ্ছে। তারপরে গরীব মানুষকে দেয়ার চেষ্টা করেন।
তিনি বলেন, যদি সত্যিকার অর্থে এটা (ভারতের ভ্যাকসিন) উপযুক্ত হয়, এটা যদি সত্যিকার অর্থে করোনা ভাইরাসকে মোকাবিলার করার ভ্যাকসিন হয় তাহলে সত্যিকার অর্থে গরীব মানুষ যথাযথভাবে গ্রামে-গঞ্জে-ইউনিয়ন পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে সেই ব্যবস্থাটা আগে করেন। আপনারা বলেছেন যে, ভোট কেন্দ্রের মতো নাকী ভ্যাকসিনের কেন্দ্র করা হবে। তাহলে এই সরকারের যে বৈশিষ্ট্য ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা যেতে পারে না, সুষ্ঠু ভোট হয়, শুধু আওয়ামী লীগের লোকেরা গিয়ে ব্যালট বাক্স পূর্ণ করে। ভ্যাকসিনের কেন্দ্র যদি সারাদেশে সেরকম হয় তাহলে তো তাই হবে। শুধু আওয়ামী লীগের লোক ও তাদের স্থানীয় নেতারা যাদেরকে সার্টিফাই করবেন তারাই ভ্যাকসিন পাবে। এখানে সাধারণ জনগণ, এখানে ভিন্নমত, ভিন্ন দল এরা কেউ ভ্যাকসিনের সুবিধা পাবে না।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট জো বাইডেন আজকে (গতকাল) শপথ নিচ্ছেন- উনি প্রথমে ভ্যাকসিন নিয়েছেন। ওই দেশের স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান ডা. ফাউসি তিনি প্রথমে ভ্যাকসিন নিয়েছেন। বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বলব, নিজেরা তো আছেন একেবারে নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা- ভাইরাস যেন কোনো ফাঁক দিয়ে...বেহুলার বাসর ঘরে লখিন্দরকে যেভাবে রাখা হয়েছিলো, কোনোভাবে কোন ছিদ্র পথে সাপ যাতে ঢুকতে না পারে। ঠিক এভাবে আছেন প্রধানমন্ত্রী, এভাবেই আছেন ওবায়দুর কাদের, এভাবেই আছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।
ভারতের তৈরি ভ্যাকসিন সম্পর্কে তিনি বলেন, যাদের কাছ থেকে উনারা (সরকার) ভ্যাকসিন নিচ্ছেন তাদেরকে আপনাদেরকেই বন্ধু মনে করে। বাংলাদেশের আর কাউকে বন্ধু মনে করে না। তাই আমাদের সন্দেহ থাকবে না কেনো এই ভ্যাকসিনের ওপর। আমাদের সন্দেহ ও সংশয় সবসময় রয়েছে যে, আপনারা যাদের কাছ থেকে ভ্যাকসিন নিচ্ছেন সিরাম ইন্সটিটিউটের কাছ থেকে নিচ্ছেন। এটা তো আমাদের কাছে বিশ্বাসের জায়গা থেকে হালকা করে। কারণ ওই দেশের পলিসি মেকাররা বাংলাদেশে শুধু আপনাদেরকে অর্থাৎ আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগ সরকারকেই বন্ধু মনে করে আর অন্য কাউকে বন্ধু মনে করে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ