শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

স্বামীর সাথে অভিমানে গৃহবধূর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর হাতিরঝিল থানার বড় মগবাজার এলাকায় ইরা আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধূর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছেন। রাতে স্বামী দেরি করে ঘরে ফেরায় অভিমানে তিনি আত্মহত্যা করেন বলে নিহতের এক স্বজনেরে দাবি। ইরার স্বামীর নাম মেহেদী হাসান। তাদের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলায়।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে বড় মগবাজারের জাহান বক্স লেন এলাকার একটি বাসায় গলায় ফাঁস দেন ইরা। পরে পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি টের পেয়ে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভোর সাড়ে ৫টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মুক্তি বেগম নামে নিহতের এক স্বজন জানান, ইরার স্বামী প্রতি রাতে দেরি করে বাসায় ফেরেন। এ কারণে অভিমান করে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেন ইরা। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতলে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে। 

পিকআপ চাপায় প্রাণ গেল ব্যবসায়ীর: রাজধানীর গুলশান থানাধীন বাড্ডা সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে পিকআপভ্যানের চাপায় সাইফুল ইসলাম (৪০) নামে এক গোশত ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার ভোর ৪টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত সাইফুল চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার নুরুল হকের ছেলে। তিনি রাজধানীর বারিধারায় পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন। সাইফুলের ছোট ভাই মোস্তফা জানান, ভোরে নিজের দোকানে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হন সাইফুল। সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে রাস্তা পারাপারের সময় একটি পিকআপভ্যান তাকে চাপা দেয়। আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হলে তার মৃত্যু হয়। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।

অর্থনীতিবিদ শামসুল আলম গুরুতর আহত: হাঁটতে বের হয়ে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয়েছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত অর্থনীতিবিদ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (জ্যেষ্ঠ সচিব) ড. শামসুল আলম। এতে তার ডান পা ভেঙে গেছে। গত শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের চন্দ্রিমা উদ্যানের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরই মোটরসাইকেল চালককে আটক করেছে এসপিবিএনের (স্পেশাল সিকিউরিটি অ্যান্ড প্রটেকশন ব্যাটালিয়ন) সদস্যরা। 

গতকাল রোববার দুপুরে বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ড. শামসুল আলম। তিনি জানান, শনিবার সন্ধ্যার দিকে চন্দ্রিমা উদ্যানের দিকে হাঁটতে বের হন তিনি। এসময় রাস্তা পারাপারের সময় দ্রুতগতিতে আসা অ্যাপসভিত্তিক একটি মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। সেখানে কর্মরত এসপিবিএনের সদস্যরা শামসুল আলমকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এরপর তাকে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে নিয়ে এক্সরে এবং সিটি স্ক্যান করা হয়। শামসুল আলম আরও জানান, তার ডান পায়ের হাড় ভেঙে গেছে। ভাঙা পায়ে প্লাস্টার করা হয়েছে। তার বাম পায়ের হাটুতেও ফ্যাক্সার ধরা পড়েছে এবং মাথা ও পিঠে আঘাত লেগেছে। তবে বর্তমানে তিনি বিপদমুক্ত এবং বাসায় রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ