মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জিততে চাই-মিরাজ

স্পোর্টস রিপোর্টার : সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জিততে আশাবাদী অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। আগামী ২০ জানুয়ারি প্রথম ওয়ানডে দিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ শুরু করবে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ ৫ ওয়ানডের সবক’টিতেই জিতেছে বাংলাদেশ। ওই ম্যাচগুলোতে দল হিসেবে শক্তিশালী ছিল ক্যারিবীয়রা। কিন্তু বাংলাদেশ সফরে আসা এই দলটি অনেকটাই তারুণ্যনির্ভর। করোনার ভয়ে মূল স্কোয়াডের বেশিরভাগ ক্রিকেটারই বাংলাদেশ সফরে আসেনি। তাই তরুণ অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজও মনে করেন, ওয়ানডে সিরিজে ক্যারিবীয়দের হারানো সম্ভব। গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে মিরাজ বলেন, ‘আমি মনে করি যে আমাদের দল খুব ভালো একটা পজিশনে আছে। আমাদের সামনে যে সিরিজ আছে, আশা করি আমরা তা জিততে পারবো। দীর্ঘ বিরতির পর গতকাল জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা একসঙ্গে অনুশীলন করতে পেরে সবাই দারুণ উৎফুল্ল। তরুণ ক্রিকেটার মিরাজ বলেন,‘অনেকদিন পর একসাথে হয়েছি এবং আমাদের সবাই খেলার জন্য অনেক উৎফুল্ল। বিশেষ করে আমাদের সাকিব ভাইও টিমে ফিরেছেন। আমরা হতাশ ছিলাম, কীভাবে কি করবো না করবো। অনুশীলন সেভাবে করতে পারছিলাম না। তারপরও আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছিলাম। এক বছর পর খেলা শুরু হচ্ছে দেখে আমরা প্রত্যেকেই খুশি।’ গত বছর মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে দলে থাকলেও টেস্ট দলে ছিলেন না মিরাজ। এখন আসন্ন সিরিজে নিজেকে ফিরে পেতে মরিয়া হয়ে আছেন এই স্পিনিং অলরাউন্ডার। তিনি বলেন,‘শেষ তিন-চারটা আন্তর্জাতিক ম্যাচে আমি অতটা ভালো করতে পারিনি। তবে আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ভালো করেছি, সেটা দেশের মাটিতে খেলা টেস্ট-ওয়ানডে দুটোতেই। তাই আমি অবশ্যই ভালো অনুভূতি নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে পারবো। এটাই চেষ্টা করবো, নিজের পারফরম্যান্সটা যেন ভালো করতে পারি এবং দিনশেষে দল যেন ভালো ফলাফল করে।’ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন হোম সিরিজে নিজের হারানো ফর্ম ফিরে পাওয়ার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ। মিরাজ বলেন,‘ দলটা ওয়েস্ট ইন্ডিজ হওয়ায় আমার জন্য কিছু সুযোগ থাকছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সর্বশেষ বাংলাদেশ সফরে আমি টেস্ট ও ওয়ানডেতে ভাল করেছিলাম।’ পুর্ন শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের ২০১৮ সালে সর্বশেষ বাংলাদেশ সফরে ওয়ানডে ও টেস্ট উভয় সিরিজেই ভাল করেছিলেন মিরাজ। সে সময় দুই টেস্ট সিরিজে ক্যারিবিয় দলকে হোয়াউটওয়াশ করেছিল টাইগাররা। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল স্বাগতিকরা ২-১ ব্যবধানে। সিমিত ও লংগার ভার্সন উভয় সিরিজ জয়েই বাংলাদেশের হয়ে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রেখেছিলেন মিরাজ। দুই টেস্ট সিরিজের এক ম্যাচে ১১৭ রানে ১২টিসহ মোট ১৫ উইকেট শিকার করেছিলেন এ স্পিনার। টেস্ট ক্রিকেটে এখনো যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সেরা বোলিং পারফরমেন্স। ওয়ানডে সিরিজে ৬ উইকেট নিয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজার সঙ্গে যৌথভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীও ছিলেন মিরাজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চার টেস্টে এ পর্যন্ত মাত্র ১৮ গড়ে ২৫ উইকেট শিকার করেছেন ২৩ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার। পক্ষান্তরে ১০ ওয়ানডে ম্যাচে নিয়েছেন ১২ উইকেট। অন্য কোন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এ দুই ভার্সনে এতটা সাফল্য পাননি মিরাজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পরিসংখ্যানই মিরাজের সাফল্যের কথা বলবে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজের পরই যেন হারিয়ে যান তিনি। ক্রিকেটের তিন ফর্মেটেই তার পারফরমেন্স ছিল একদম সাদামাটা। যে কারনে দল থেও বাদ পড়েন তিনি। মিরাজ আরো বলেন,‘ দেশে কিংবা দেশের বাইরে গত তিন-চারটা সিরিজ আমি ভাল করিনি। যেহেতু প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাই আমার একটা সুযোগ থাকবে বলে আমি মনে করছি। এখানে ভাল করতে পারলে পুনরায় দলে জায়গা পেতে একটা ভাল সুযোগ থাকবে বলে মনে করছি। সুতরাং ভাল পারফরমেন্স এবং দেশের জন্য ভাল কিছু করতে আমি আমার সর্বোচ্চ চেস্টা করব।’ সূচি অনুযায়ী, ২০ জানুয়ারি সিরিজের প্রথম ওয়ানডে মাঠে গড়াবে। এরপর ২২ ও ২৫ জানুয়ারি সিরিজের বাকি দুই ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দুই দল। ৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে প্রথম টেস্ট। দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট মাঠে গড়াবে ১১ ফেব্রুয়ারি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ