বুধবার ২০ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ট্রাম্পের অভিশংসন প্রশ্নে ভোটের জন্য প্রস্তুত ডেমোক্র্যাটরা

১৩ জানুয়ারি, রয়টার্স : যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটলে হামলার ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসিত করার বিষয়ে ভোটের জন্য প্রস্তুত কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট দলীয় সদস্যরা।

বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, অন্তত পাঁচ জন রিপাবলিকান সদস্য অভিশংসন উদ্যোগের পক্ষে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন।

ট্রাম্পের মেয়াদের আট দিন বাকি থাকার মধ্যেই এই রিপাবলিকানের বিরুদ্ধে তার অনুসারিদের উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে বিদ্রোহ প্ররোচিত করার অভিযোগ এনে গতকাল বুধবার প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসনের একটি অনুচ্ছেদের ওপর ভোটাভুটি হওয়ার কথা। গত সপ্তাহে ট্রাম্পের ওই ভাষণের পর তার কট্টর সমর্থকরা ক্যাপিটল ভবনে হামলা চালালে দাঙ্গায় পাঁচ জনের মৃত্যু হয়।

প্রতিনিধি পরিষদ অভিশংসনের পক্ষ ভোট দিলে এখনও পর্যন্ত রিপাবলিকানদের নিয়ন্ত্রণে থাকা উচ্চকক্ষ সেনেটে প্রেসিডেন্টকে অভিশংসিত করার বিষয়ে শুনানি শুরু হবে। তবে ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরানোর মতো পর্যাপ্ত সময় ও রাজনৈতিক আকাঙ্খা এখনও আছে কিনা তা পরিষ্কার নয় বলে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

অভিশংসন ভোটের দিকে অগ্রসর হওয়ার আগে সোমবার প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটরা ভাইস প্রেসিডেন্ট পেন্সকে সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগ করে ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরানোর প্রস্তাব তুলেছিল, কিন্তু মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পেন্স তা প্রত্যাখ্যান করেন।

প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ডেমোক্র্যাট ন্যান্সি পেলোসিকে পাঠানো এক চিঠিতে পেন্স বলেছিলেন, “এ ধরনের পদক্ষেপ আমাদের জাতির স্বার্থ সবচেয়ে ভালোভাবে রক্ষা করবে বা এটি আমাদের সংবিধানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে বলে আমি মনে করি না।”

এই চিঠি সত্ত্বেও প্রতিনিধি পরিষদে তোলা ওই প্রস্তাব পাস হয় আর পেন্সকে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। চূড়ান্ত ভোটাভুটিতে প্রস্তাবের পক্ষে ২২৩ ও বিপক্ষে ২০৫ ভোট পড়ে।

এসব যখন ঘটছে তখন নিজ দলের ওপর ট্রাম্পের বজ্রমুষ্ঠি আলগা হয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত মিলছে। প্রতিনিধি পরিষদের নেতৃস্থানীয় একজন সদস্যসহ অন্তত পাঁচ জন রিপাবলিকান জানিয়েছেন, তারা ট্রাম্পকে অভিশংসনের জন্য ভোট দেবেন।

এই সদস্যদের মধ্যে প্রতিনিধি পরিষদের তিন নম্বর রিপাবলিকান লিজ চেনিও আছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট রিপাবলিকান ডিক চেনির মেয়ে। ট্রাম্প এবার নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো অভিশংসিত হলে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে দুইবার অভিশংসিত হওয়া প্রথম প্রেসিডেন্ট হবেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ