বুধবার ২০ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

নাঙ্গলকোটে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ১১ শ’ ছাত্রের বিপরীতে শিক্ষক ৭

কেফায়েত উল্লাহ মিয়াজী, কুমিল্লা অফিস: কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার একমাত্র সরকারী স্কুল নাঙ্গলকোট এ আর মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়। স্কুলটিতে প্রায় ১১শ’ শিক্ষার্থীর বিপরীতে রয়েছে মাত্র ৭জন শিক্ষক। বিদ্যালয়টি ২৭ অক্টোবর ২০১৮ সালে জাতীয়করণ হওয়ার পর থেকে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। যার ফলে শিক্ষক সংকট নিয়ে চলছে শিক্ষা কার্যক্রম। বিদ্যালয়টিতে কোন গণিত ও ইংরাজী বিষয়ের শিক্ষক নেই। প্রতিষ্ঠানটিতে ২৫ জন শিক্ষকের স্থলে আছে এমপিও ভূক্ত মাত্র ৭জন শিক্ষক। আর ৭ কর্মচারীর স্থলে রয়েছে ৩জন। সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে শরীর চর্চা শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) দিয়ে শিক্ষা ও প্রশাসনিক কাজ সমপন্ন করা হচ্ছে। শিক্ষক সংকট থাকায় ১১জন খন্ড কালিন শিক্ষক দিয়ে কোন রকম জোড়াতালি দিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হচ্ছে। এতে করে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ব্যাঘাত ঘটছে। ফলে মেধাশূণ্য হচ্ছে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। জানা যায় বিগত ২০২০ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার ফলাফল সন্তোষ জনক নয়।

এ ব্যাপারে অভিভাবক সোলাইমান জানান, খন্ড কালিন শিক্ষক দিয়ে প্রকৃত পক্ষে ভাল লেখা পড়ার সুযোগ নেই। আমাদের সন্তানরা শিক্ষকের অভাবে প্রতিষ্ঠান বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। জরুরী ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষক নিয়োগের দাবীও জানান অভিভাবকগণ।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এস.এম রহমান ভূঁইয়া বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট থাকায় খন্ড কালিন শিক্ষক দিয়ে কোন রকম প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা হচ্ছে। অধিকাংশ শিক্ষক চাকুরী থেকে অবসর গ্রহন করায় শিক্ষকের পদ শূন্য হয়। প্রতিষ্ঠানটি সরকারী হওয়ায় বেসরকারী নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এন.টি.আর.সি.এ) এর মাধ্যমে শিক্ষকের জন্য আবেদন করা যাচ্ছে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লামইয়া সাইফুল বলেন, স্কুলটি জাতীয় করণ হওয়ায় শিক্ষক নিয়োগ দেয়া যাচ্ছে না। খন্ডকালীন শিক্ষক দিয়ে বিদ্যালয়টি পরিচালনা করা হচ্ছে। আশাকরি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দ্রুত সময়ের মধ্যে শিক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ