শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

ভেজাল সার ও নিম্নমানের বীজে সয়লাব সৈয়দপুরের বাজার

সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা : কৃষি জমির জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় সার ও ফসল চাষের প্রধান উপকরণ বীজ নিয়ে চরম বিপদে পড়েছে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা কৃষকেরা। কারণ চলতি মৌসুমের আবাদের শুরুতেই ভেজাল সার ও বীজে সয়লাব হয়ে গেছে সৈয়দপুরের বাজার। প্রায় প্রত্যেক সার ও কীটনাশকের দোকানে বিক্রি হচ্ছে নামি-বেনামী নানা কোম্পানীর মোড়কে নকল ও ভেজাল সার। পাশাপাশি একইভাবে প্যাকেটজাত বীজও অত্যন্ত নিম্নমানের এবং অনেক ক্ষেত্রে একেবারেই মানহীন। ফলে বাজারে এসে আকর্ষণীয় প্যাকেটের ধোকায় পড়ে কৃষকরা মারাত্মকভাবে ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন। এক্ষেত্রে কিছু কিছু দোকানী নিজেরাই নকল প্যাকেটজাত করছে আবার অনেকে অধিক লাভের আশায় বিভিন্ন ভেজাল কোম্পানীর সরবরাহকৃত নিম্নমানের বীজ বিক্রি করছে। তারা কৃষককে জেনে বুঝেই ঠকাচ্ছে। একইভাবে তারা ভেজাল সার প্যাকেটজাত হচ্ছে শহরের বিভিন্ন স্থানে। যা উপজেলা কৃষি অফিসের নজরদারীতেই ঘটছে। ভেজাল সার ও বীজ প্যাকেট ও বাজারজাত নিরোধে দায়িত্বপ্রাপ্ত মাঠ কর্মী এসব দেখেও না দেখার ভান করছেন। তিনি দীর্ঘদিন এই উপজেলায় কর্মরত থাকায় ওইসব কোম্পানী ও ব্যক্তির সাথে সখ্যতা গড়ে ওঠায় তদারকির ক্ষেত্রে গাফলতি করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ কারণেই দিন দিন ভেজালকারীরা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। যার খেসারত দিতে হচ্ছে কৃষকদের।
উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের আব্দুর রহিম নামে এক কৃষক জানান, তিনি গত মাসের প্রথম সপ্তাহে সৈয়দপুর শহরের একটি দোকান থেকে ধানের বীজ এনে চারা করার জন্য জমিতে ছিটিয়েছিলেন। কিন্তু এখনও তা সঠিকভাবে গাজায়নি। মাঝে মাঝে কিছু কিছু গাছ বেড় হলেও অধিকাংশই নষ্ট হয়ে গেছে। এতে আমি অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছি। একইভাবে আরও অনেক কৃষক তাদের ক্ষতির কথা জানিয়েছেন।
সৈয়দপুরে ভেজাল সার ও বীজ বিক্রয়কারীদের একটি সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। এই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে উপজেলা কৃষি বিভাগকে ম্যানেজ করা হচ্ছে বলেও কানাঘুষা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ