শনিবার ২৮ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

নবেম্বরের ২০ দিনেই দেশে ডেঙ্গু রোগী দ্বিগুণ

স্টাফ রিপোর্টার : অক্টোবর মাসের চেয়ে নবেম্বরের ২০ দিনে সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণের বেশি হয়েছে। অক্টোবর মাসে ১৬৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছিল তবে ২০ নবেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৩৪২ জন। বর্তমানে হাসপাতালেই ভর্তি আছেন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ১০০ জন রোগী। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ১৫ জন।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বলছে, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা সময়ে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৯৩ জন। রাজধানীর বাইরে সাতজন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের স্বাস্থ্য তথ্য ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও সহকারী পরিচালক ডা. মো. কামরুল কিবরিয়ার সই করা বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঁচজন ও ঢাকা শিশু হাসপাতালে তিনজন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন।
একই সময়ে স্কয়ার হাসপাতালে দুই জন ও সেন্ট্রাল হাসপাতালে এক জন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া ধানমন্ডি ইবনে সিনা হাসপাতালে একজন, আদদিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একজন ও ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একজন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন। এর বাইরে ঢাকা বিভাগের রাজবাড়ীতে একজন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
কন্ট্রোল রুমের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,২০২০ সালে এখন পর্যন্ত দেশে ৯৬৯ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৮৬৩ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। সরকারের স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও রোগ গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ছয় জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার তথ্য পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি দু’টি মৃত্যু পর্যালোচনা করে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছে।
২০০০ সালে বাংলাদেশে প্রথম ডেঙ্গু জ্বরের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। এরপর ২০১৯ সালের জুন মাসেই ব্যাপকভাবে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ে। ডেঙ্গু সংক্রমণ অব্যাহত থাকে জুলাই মাসেও। আগস্ট মাসে দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ সংখ্যক ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী পাওয়া যায়। পরে সেপ্টেম্বর-অক্টোবর থেকে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করে। ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসেও দেশে ১৯৯ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়।
পরবর্তী সময়ে এ সংখ্যা আরও কমে আসে। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ৪৫ জন, মার্চ মাসে ২৭ জন, এপ্রিল মাসে ২৫ জন, মে মাসে ১০ জন, জুন মাসে ২০ জন, জুলাই মাসে ২৩ জন, আগস্ট মাসে ৬৮ জন ও সেপ্টেম্বর মাসে ৪৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। তবে অক্টোবর মাসে ফের সংক্রমণ বাড়ে। ওই মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে হাসপাতালগুলোতে মোট ১৬৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হন। নবেম্বরে এখন পর্যন্ত ৩৪২ জন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ