বুধবার ২০ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

চট্টগ্রামে নতুন করোনা আক্রান্ত ১৯৭ জন

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে মানুষের অবহেলা, উদাসীনতায় করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সরকারী প্রশাসন,সচেতন মানুষ মাস্ক পরার জন্য বার বার বললেও সাধারণ মানুষ কানে তুলছে না সে কথা।মার্কেট ,শপিংমল,সামাজিক অনুষ্ঠানে,মসজিদে,উপসনালয়ে কেউ শুনছে না কথা।
গতকাল শুক্রবার নগরীর ও জেলার মসজিদে মুসল্লীদের মাস্ক ব্যবহারের জন্য ইমাম খতিবগণ অনুরোধ জানালেও বেশীরভাগ মানুষ ছিল অসচেতন।করোনা ভাইরাস নিয়ে প্রচারণাকে অনেক মানুষ উপহাস করতে দেখা গেছে।করোনা ভাইরাসকে তারা সাধারণ ফ্লু হিসাবে মনে করছে।সরকারী প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক ব্যবহারের জন্য বাধ্য করার নিমিত্তে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হলেও যতক্ষণ মোবাইল কোর্ট ততক্ষণ মানুষ সচেতন দেখা গেছে।নিম্নবিত্ত মানুষ তো মোটেও সচেতন না।তারা বলছে করোনা বড়লোকের ব্যারাম।গরীবদের হবে না। তাদের এধরনের বক্তব্যে আতংকিত সচেতন মহল।
বিশেষজ্ঞরা বলছে চট্টগ্রামে এখনই কঠোর পদক্ষেপ প্রয়োজন।গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে নতুন সনাক্ত হয়েছে আরও ১৯৭ জন করোনা রোগী। পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে খারাপের দিকে যাচেছ।মাস্ক পরানোর জন্য কঠোরতা দরকার। গত কয়েকদিন ধরে করোনা শনাক্তের হার ছিল ক্রমশ উর্ধ্বমুখী। এবার তা প্রায় স্পর্শ করে ফেলেছে দুইশর ঘর। নতুন শনাক্ত ১৯৭ জন গত জুন মাসের পর সর্বোচ্চ শনাক্ত। আগেরদিন এই সংখ্যা ছিল ১৬১, ১৩ নবেম্বর ছিল ১০৮ জন, ১৪ নবেম্বর ১৪৬ জন, ১৭ নবেম্বর ১৫৭ জন এভাবেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা শনাক্তের সংখ্যা। একই সাথে চট্টগ্রাম নগরে করোনায় মারা গেছেন আরও একজন।এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা শনাক্ত রোগী এখন ২৩ হাজার ৪১৯ জন। এদের মধ্যে নগরের রোগী ১৭ হাজার ৪৭৩ জন এবং ৫ হাজার ৯৪৬ জন উপজেলা পর্যায়ের বাসিন্দা। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন ৩১২ জন, যাদের ২১৮ জন নগরের এবং ৯৪ জন উপজেলার। অন্যদিকে ১৯ নবেম্বর পর্যন্ত করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৭৯২ জন।গতকাল শুক্রবার  সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এসব তথ্য জানান।তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামের সরকারি-বেসরকারি নয়টি ল্যাবে এক হাজার ৪৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৯৭ জনের দেহে। এদের মধ্যে ১৭৮ জন নগরের এবং ১৯ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নগরে একজনের মৃত্যু হয়।সিভিল সার্জনের তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের প্রধান করোনা পরীক্ষাগার ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)-তে বিদেশগামীদের বাধ্যতামূলক করানো টেস্টসহ ৫৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়। তাতে করোনা শনাক্ত হয় ১১ জনের দেহে।চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২ জনের নমুনাপরীক্ষা করে ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়।চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় ৫১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করোনা করা হয়। তাতে করোনা শনাক্ত হয় দিনের সর্বোচ্চ ১০৫ জনের দেহে।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত পাওয়া যায়। ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবেও গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাতে করোনার জীবাণু পাওয়া যায় ৩৫ জনের দেহে।  শেভরণ ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৩ জনের করোনা পরীক্ষা করে ১৬ জন করোনা শনাক্ত হন। চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়।কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের ১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে সেটিতে করোনা নেগেটিভ আসে।চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল রিজিওন্যাল টিউবারকুলোসিস র‌্যাফারেল ল্যাবরেটরিতেও (আরটিআরএল) ২৪ ঘণ্টায় ২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১টিতে করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ