শনিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২০
Online Edition

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত আতঙ্ককে পুঁজি করে লাভবান হচ্ছে পুঁজিপতিরাই : বোজর্ন লমবর্গ

২১ নবেম্বর, আরটি : নিজেকে সেপটিকাল এনভারোমেন্টালিস্ট বলে দাবি করেন লমবর্গ। এর অর্থ এমন এক পরিবেশবীদ, যিনি খুব সহজে কোনো তত্ত্ব বিশ্বাস করেন না। চান নিরেট প্রমাণ। লমবর্গ মনে করেন, জলবায়ুর পরিবর্তন নিয়ে যেসব তত্ত্ব ও সমাধান বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছে সেগুলোর সব কিছুই বিশ্বাস করে ফেলার সুযোগ নেই।

লমবার্গের মতে জলবায়ু সমস্যা আছে এই ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। অন্য অনেকের মতো এটিকে পুরোপুরি অস্বীকার করে বসাটা হবে একেবারে অন্যায় একটি বিষয়। তবে যেভাবে একটা শ্রেণি স্ব স্বার্থে আতঙ্ক তৈরি করছে তা ঠিক নয়। তার মতে একটি শ্রেণি একে কেন্দ্র করে ব্যবসা করছে। উদাহরণ হিসেবে টেসলার কথা তুলে ধরেন তিনি। তার মতে টেসলার গাড়ির দাম বেশি। নিজেদের জলবায়ু দরদি বোঝাতে অনেকেই এই গাড়িগুলো কিনছেন। কিন্তু টেসলাও পরিবেশ দূষণ করে। এই গাড়ি ব্যবহারের সময় দূষণ কমে ৩ ভাগের একভাগ। এটি ভালো ব্যাপার হলো, অতিরিক্ত অর্থের তুলনায় যথেষ্ট নয়।

গ্রেটা থনবার্গের উত্থানকে একসব কোম্পানির বাই প্রোডাক্ট বলে মনে করেন এই ডেনিশ বিজ্ঞানী। তিনি পরিবেশ নিয়ে তরুণদের কথা বলাকে সাধুবাদ জানালেও মনে করেন, পশ্চিমা কোম্পানিগুলো যেভাবে চায়, সেভাবেই কথা বলেন গ্রেটা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ