শনিবার ২৮ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ডিএসইতে বিগত সাড়ে ৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন

স্টাফ রিপোর্টার: সপ্তাহের চতুর্থ দিন সূচক কমার সঙ্গে লেনদেনেও খরা দেখা দিয়েছে ঢাকার পুঁজিবাজারে। এই লেনদেন গত সাড়ে তিন মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। এর আগে এর চেয়ে কম লেনদেন হয়েছিল গত ২৯ জুলাই, সেদিন ৩৯৯ কোটি ৫২ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছিল। এদিকে বাংলাদেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের ক্ষেত্রে ১৫ মিনিটের প্রি ওপেনিং ও ১০ মিনিটের পোস্ট ক্লোজিং সেশন চালু করা হয়েছে।
গতকাল বুধবার ডিএসইতে ৫৪৪ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় আড়াইশ কোটি টাকা কম। এই লেনদেন গত সাড়ে তিন মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। এর আগে এর চেয়ে কম লেনদেন হয়েছিল গত ২৯ জুলাই, সেদিন ৩৯৯ কোটি ৫২ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছিল। ডিএসইতে গতকাল বুধবার লেনদেন হয়েছে ৩৩৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৯টির, কমেছে ১৭৪টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ৮২টির।
ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিন থেকে ১৭ দশমিক ৯৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ কমে ৪ হাজার ৮৮৭ দশমিক ১২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক দশমিক শূন্য ৩৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ১২৬ দশমিক ৫৫ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ৪ দশমিক ২৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ৬৯৯ দশমিক ৭৭ পয়েন্টে।
চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক সিএএসপিআই ৬০ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৩ হাজার ৯৮৫ পয়েন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৪৩ শতাংশ কম। সিএসইতে ২৪ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিন ছিল ২২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৩৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৭টির, কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫০টির।
এদিকে বাংলাদেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের ক্ষেত্রে ১৫ মিনিটের প্রি ওপেনিং ও ১০ মিনিটের পোস্ট ক্লোজিং সেশন চালু করা হয়েছে। চালু হওয়া এই পদ্ধতিতে লেনদেন শুরুর নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট আগে শেয়ার কেনাবেচার প্রস্তাব দেওয়া যাবে এবং লেনদেন শেষ হওয়ার ১০ মিনিট পর পর্যন্ত সমাপনী দরে শেয়ার লেনদেন করা যাবে।
ডিএসইতে প্রি ওপেনিং ও ওপেনিং সেশন এবং ক্লোজিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন চালু হওয়ার কারণে ডিএসই’র এই অফিস সময়সূচির পরিবর্তন আনা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে ডিএসই অফিস চলবে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। যেখানে আগের সময়সূচি ছিল সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত। ডিএসইর প্রি ওপেনিং ও ওপেনিং সেশন হবে সকাল ৯টা ৪৫ মিনিট থেকে সকাল ১০টা। এ সেশনে বিনিয়োগকারীরা শুধু শেয়ার কেনা বা বেচার আদেশ দিতে পারবেন। এই সেশনে একটি আইডিয়াল ওপেনিং প্রাইস নির্ধারণ করা হবে। সর্বোচ্চ সংখ্যক ক্রেতা এবং বিক্রেতা যেই প্রাইসে থাকবে সেটাই হবে ওপেনিং প্রাইস। নিয়মিত সময়ে গিয়ে এই ওপেনিং প্রাইসে লেনদেনটি সম্পন্ন হবে। পরে স্বাভাবিক নিয়মে নিয়মিত সেশনটি চালু থাকবে।
এদিকে দুপুর আড়াইটায় স্বাভাবিক লেনদেন শেষ হওয়ার পর শুরু হবে ক্লোজিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন। এর ব্যাপ্তি হবে ১০ মিনিট। এ সময়ে বিনিয়োগকারীরা নতুন করে কোনো শেয়ার দর প্রস্তাব করতে পারবেন না। শুধু ক্লোজিং প্রাইসে শেয়ার কেনা বা বেচার সুযোগ পাবেন। এ সেশন শেষ হবে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ