বুধবার ২০ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

নেপালকে আবারও হারিয়ে সিরিজ জিততে চায় বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার: মুজিববর্ষ ফুটবল সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচে আজ মঙ্গলবার স্বাগতিক বাংলাদেশ দলের মুখোমুখি হবে নেপাল জাতীয় দল। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল ৫ টায় ম্যাচটি শুরু হবে। শুক্রবার সিরিজের প্রথম ম্যাচে নেপালকে ২-০ গোলে হারিয়ে এগিয়ে রয়েছে জামাল ভূঁইয়ার দল। দীর্ঘ ৫ বছর পর নেপালের বিপক্ষে জয় পেয়ে উজ্জীবিত স্বাগতিক শিবির। যদি ও দলের প্রধান কোচ জেমি ডে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় কোচের উপস্থিতি মাঠে থাকছেনা। তার স্থানে ডাকআউটে স্বদেশি সহকারী স্টুয়ার্ট ওয়াটকিসের আন্তর্জাতিক ম্যাচে অভিষেক হবে। জেমি আইসুলেশনে থাকলেও তার পরামর্শেই জামাল ভূঁইয়ারা গেম প্ল্যানিং সাজিয়েছেন। নেপালের বিপক্ষে এই ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য সিরিজ জয়ের আর নেপালের জন্য ঘুরে দাঁড়ানোর। তাই দুই দলই ম্যাচ জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। করোনার কারণে স্থগিত থাকা বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি আগামী ৪ ডিসেম্বর দোহায় অনুষ্ঠিত হবে। সেই ম্যাচের প্রস্তুতিতে সহায়ক হিসেবেই দেখা হচ্ছে ম্যাচটিকে। তাই তো ভাল খেলা উপহার দিয়েই নেপালের বিপক্ষে জয় তুলে নিতে চায় স্বাগতিকরা। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ফুটবল দল কাতারের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বে বলে জানা গেছে।প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও সেই ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধটা ভালো খেলতে পারেনি বাংলাদেশ। অধিনায়িক জামাল ভূঁইয়া এবার সেটার পুনরাবৃত্তি করতে চান না।এই ম্যাচে দুই অর্ধেই ভালো করতে চায় তার দল। গতকাল সোমবার ম্যাচের আগে অলনলাইনে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান জামাল ভূঁইয়া।করোনা আক্রান্ত হওয়ায় এই ম্যাচে ডাগআউটে থাকতে পারছেন না প্রধান কোচ জেমি ডে। তবে এতে ম্যাচে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছেন স্বাগতিক দলের অধিনায়ক। জামাল ভূঁইয়া বলেন, 'আগের ম্যাচে প্রথমার্ধ ভালো ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে আমি ১০/১৫ মিনিট খেলছি। প্রথমার্ধ দারুণ ছিল, দ্বিতীয়ার্ধে কষ্ট করতে হয়েছে। শুধু প্রথমার্ধে ভালো খেললে চলবে না, দুই অর্ধেই ভালো খেলতে হবে। আগামীকাল (মঙ্গলবার) সেটাই আমাদের লক্ষ্য। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে দল কেমন খেলেছে। সে হিসেবে প্রথম ম্যাচের পারফরম্যান্সে আমি খুশি। 'ম্যাচের পরিকল্পনা, কৌশল ও নির্দেশনা সবই কোচের কাছ থেকে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তাই ম্যাচের পুরো মনোযোগ দিতে চায় তার দল। কোচের অনুপস্থিতি দলের পারফরম্যান্সে কোনো প্রভাব পড়বে না। তিনি বলেন, ‘জেমি থাকুক আর না থাকুক, আমাদের মনোযোগ একই থাকবে। জেমি বা স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস যে-ই থাকুক, আমাদের খেলার নির্দেশনা ও ট্যাকটিক্যাল ব্যাপারগুলো একই। জেমি না থাকলে সেটা বড় সমস্যা হবে না।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ