বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

২০ বছরেও নরসিংদীর কমিশনার মানিক হত্যার বিচার না হওয়ায় ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার: ২০ বছরেও দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার হয়নি নরসিংদী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার মো. মানিক মিয়ার হত্যাকাণ্ডের। এ হত্যার বিচারের দাবিতে গতকাল বুধবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন ভুক্তভোগী পরিবার।
২০০১ সালের ১ জানুয়ারি তৎকালীন নরসিংদী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার মো. মানিক মিয়াকে প্রকাশ্যে নির্মমভাবে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ওই হত্যারকাণ্ডের আসামিদের দ্রুত বিচার এবং ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন মানিকের ছোট ভাই আমিরুল ইসলাম আমু। মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন কমিশনার মানিকের ভাই মো. হিরন মিয়া, মো. শাহজাহান, মো. বেদন ভূঁইয়া, মো. জাকারিয়া, মো. ইয়ার আলামীনসহ পাঁচ শতাধিক এলাকাবাসী।
মানববন্ধনে আমিরুল বলেন, ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি আমার বড় ভাই তৎকালীন নরসিংদী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার মো. মানিক মিয়াকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এ বিষয়ে নরসিংদী থানায় তিনজন আসামীর নাম উল্লেখ করে একটি মামলাও করা হয়। ওই মামলায় ১ নম্বর আসামী করা হয় নিহত সাবেক মেয়র লোকমান হোসেন, ২ নম্বর আসামি বর্তমান নরসিংদী পৌর মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল এবং ৩ নম্বর আসামী করা হয় মাদক সম্রাজ্ঞী পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান সুমনকে। মামলাটি বর্তমানে ঢাকা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এ বিচারাধীন রয়েছে।
তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, এ ঘটনার ২০ বছর পার হলেও এখন পর্যন্ত আসামিদের বিচার হয়নি। যখন কমিশনার মানিককে হত্যা করা হয়, তখন কামরুল ও তার বড় ভাই নিহত মেয়র লোকমান নরসিংদী শহরের গডফাদার হিসেবে খ্যাত ছিলেন। তিনি বলেন, আমার বড় ভাইকে প্রকাশ্যে নির্মমভাবে হত্যার পর আসামীদের বিরুদ্ধে পুলিশ তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়ার পর চার্জশিট আদালতে বিচারের জন্য পাঠায়। পরে সিআইডি আরও দুই দফা তদন্ত করে চার্জশিট দেন।
আমিরুল বলেন, সাক্ষীদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। বর্তমান পৌর মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল বাহিনীর জন্য প্রাণভয়ে সাক্ষীরা আদালতে সাক্ষী দিতে পারছে না। সাক্ষ্য দেয়ার দিনক্ষণ ঠিক হলে কামরুলের সন্ত্রাসী বাহিনী আদালত চত্বর ঘিরে রেখে সাক্ষীদের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়। শুধু তাই নয় কামরুলের সন্ত্রাসী বাহিনী সাক্ষীদের বাড়িতে গিয়েও প্রাণনাশের হুমকি দেয়। ফলে সাক্ষীরা এখন নিজ বাড়িতে অবস্থান করতে পারছে না। তিনি দাবি জানিয়ে বলেন, মানিক হত্যাকাণ্ডের ২০ বছর অতিক্রম হলেও এখন পর্যন্ত কোনো বিচার হয়নি। আমরা চাই এ ঘটনার দ্রুত বিচার হোক, আসামীদের ফাঁসি হোক। এজন্য প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ