রবিবার ০২ অক্টোবর ২০২২
Online Edition

দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে ৩ হাজার বিঘা ভূমি এখন কৃষি জমি

দিনাজপুর অফিসঃ দিনাজপুর ফুলবাড়ির খয়েরবাড়ি এবং দৌলতপুর ইউনিয়নের প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমিতে দীর্ঘদিন ধরে জলাবদ্ধতা নিরসন করার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম। জেলা প্রশাসক ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে দীর্ঘ দিনের জলাবন্ধতা নিরসনের জন্য নিজ হাতে কোদাল নিয়ে ৪ মিটার ড্রেনেজ খনন কাজের উদ্ধোধন করেন। এতে কয়েক হাজার পরিবার ৩ হাজার বিঘা জমি কৃষি আবাদের আওতায় চলে এসেছে। গতকাল শনিবার উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের বারাইপাড়া এলাকায় কোদাল হাতে জেলা প্রশাসক ড্রেন নির্মাণের কাজ উদ্বোধন করেন। স্থানীয় কৃষকরা জানান, দীর্ঘ ৫ বছর ধরে ফুলবাড়ির খয়েরবাড়ি-দৌলতপুরসহ আশপাশের প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমিতে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে কোন ধরণের চাষাবাদ হচ্ছিল না। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন মহলে কৃষকরা দাবি জানিয়ে আসলেও কোন উপকার পায়নি। সর্বশেষ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মহোদয় নিজেই এই জলাবদ্ধতা নিরসনে মাঠে নেমেছেন। দৌলতপুর মৌজায় দীর্ঘ ৫ বছর ধরে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে আলম সরকার তার ১ একর জমিতে কোন ধরণের চাষাবাদ করতে পারছিলেন না। আলম সরকার বলেন, আমার দুই বিঘা জমি পূর্বে থেকেই ছিল। পরে এক বিঘা জমি ক্রয় করেছি। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে জলাবদ্ধতার কারণে জমিতে কোন চাষাবাদ করতে পারছিলাম না। তিনি আরো জানান, মাত্র ৩০০ ফিট একটি ড্রেন না থাকায় হাজার হাজার কৃষকরা তাদের জমিতে ফসল উৎপাদন করতে পারছিলাম না। ৩০০ ফিটের ড্রেনটি নির্মাণ কাজ শেষ হলে কয়েক হাজার কৃষক পরিবার তাদের জমিতে ফসল ফলাতে পারবে। খয়েরবাড়ি এলাকার মো. জালাল উদ্দিন বলেন, একটা ড্রেন না থাকায় আমাদের হাজার হাজার বিঘা জমিতে ফসল ফলাতে পারছি না। আমরা এর আগে চেয়ারম্যান, উপজেলা, জেলাতেও যোগাযোগ করেছি জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য কিন্তু কোন কাজ হয়নি। সর্বশেষ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মহোদয় আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে আজকে নিজেই কোদাল নিয়ে মাঠে নেমেছেন। দু'একদিনের মধ্যেই এই ড্রেনটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে আমরা আবার জমি গুলোতে ফসল ফলাতে পারব। ড্রেন নির্মাণ কাজে এগিয়ে আসেন ফুলবাড়ি উপজেলার শিক্ষক, সুধিজন, কৃষক, কৃষাণী, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ কয়েকজ হাজার মানুষ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ