রবিবার ০২ অক্টোবর ২০২২
Online Edition

চলনবিলে কচুরিপানা ও জলাবদ্ধতায় চাষাবাদ ব্যাহত

চলনবিলে কচুরিপানা কারণে জলাবদ্ধতা

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : চলনবিলের তাড়াশ উল্লাপাড়া চাটমোহর ভাঙ্গুড়া ফরিদপুর সিংড়া ও গুরুদাসপুর এলাকায় কচুরিপানা এখন কৃষকদের গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে। বিলে বর্ষার পানি মাঠ থেকে নামতে শুরু করেছে। উজানের জমে থাকা কচুরিপানা চলনবিলের নিচু জমিতে এসে আটকিয়ে গেছে। কৃষকরা এখন কচুরি পানা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে। তাড়াশের মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের মান্নান নগর সংলগ্ন হাটিকুমরুল বনপাড়া মহাসড়কের উত্তরে মান্নান নগর থেকে কাটাখাল পযর্ন্ত কচুরিপানায় আটকিয়ে গেছে। চলনমান ব্রীজ কালভার্টগুলি কচুরিপানায় আটকিয়ে গেছে। কৃষকদের কচুরিপানা নিয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। চলনবিলে কচুরিপানা ও জলাবদ্ধতায় চাষাবাদ ব্যাহত ওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। চলনবিলে তিন ফসলি জমিতে মাত্র একবারই চাষ করা সম্ভব হচ্ছে। অন্যদিকে তাড়াশে ১ হাজার হেক্টর জমিতে ফসল আবাদ করতে পারছেন না কৃষকরা। উল্লাপাড়ার শাহজাহানপুর গ্রামের পাশে স্থায়ী জলাবদ্ধতার কারণে ভেদুরিয়া বিলে তিন ফসলি জমি এখন এক ফসলি জমিতে পরিণত হয়েছে। এখন কেবল বোরো মৌসুমে একবার ধান উৎপাদন করতে পারছেন বিলের কৃষকরা। স্থানীয় কৃষি বিভাগের জরিপে এ বিলের মালিকেরা বছরে ৪০ লাখ টাকার ফসল পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। অথচ মাত্র ৫শ' ফুট দীর্ঘ একটি খাল খনন করা গেলেই পানি নিষ্কাশনের মাধ্যমে বিলের জমিতে বছরে তিনবার ফসল উৎপাদন করা সম্ভব হতো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ