রবিবার ০২ অক্টোবর ২০২২
Online Edition

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্ড আত্মসাৎ ও চাল চুরির অভিযোগে ডিলারের লাইসেন্স বাতিল

সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা : অসহায় ও গরীব মানুষদের জন্য চালুকৃত খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় দেয়া ১০ টাকা কেজির চালের সুবিধাভোগীর কার্ড আত্মসাৎ ও ওজনে কম দেয়ার ঘটনা হাতে নাতে ধরা পড়ায় ডিলারের লাইসেন্স বাতিল ও জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নে।
জানা যায়, ওই ইউনিয়নের ডিলার আবু সাইদ চৌধুরী বাবু। তিনি স্থানীয় প্রভাবশালী চৌধুরী পরিবারের সদস্য হওয়ায় প্রথম থেকেই ওজনে কম দিয়ে আসছিল। ৩০ কেজির স্থানে ২৫ থেকে ২৭ কেজি করে চাল দেয়ায় সুবিধাভোগী প্রতিবাদ করলেই তাদেরকে নানাভাবে হয়রানী ও অপমান করা হতো। বিশেষ করে ইউনিয়নের পশ্চিমাংশের ওয়ার্ডগুলোর কার্ডধারীদের ব্যাপকভাবে হেনস্তা করে। এনিয়ে অভিযোগ করায় অনেকের কার্ড কেড়ে নিয়ে আত্মসাৎ করেছে ডিলার।
গত ২১ অক্টোবর বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে  এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ করেন ১ নং ওয়ার্ডের বোতলাগাড়ী নাপিতপাড়ার শ্রী খোকা চন্দ্রের ছেলে অশ্বিনী চন্দ্র (কার্ড নং ৩৪৭)।
এদিকে বৃহস্পতিবার ডিলার আবু সাইদ চৌধুরী চাল কম দেয়ার অভিযোগ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাসিম আহমেদ ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ তৌহিদুর রহমান তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সরেজমিনে তদন্ত করে চাল কম দেয়ার সত্যতা নিশ্চিত হন এবং হাতে নাতে বিষয়টি ধরে ফেলেন।
এর প্রেক্ষিতে ডিলার লাইসেন্স বাতিল করে ডিলার আবু সাইদ চৌধুরী বাবু'র বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে প্রশাসন। সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাসিম আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন। চাল কম দেয়ার অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় ডিলারের লাইসেন্স বাতিল ও জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। চাল আত্মসাৎ ও কার্ড কেড়ে নেয়ার কারনে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আল হেলাল চৌধুরী বলেন, এ পর্যন্ত আমার কাছে কেউ এমন অভিযোগ নিয়ে আসেনি। ডিলারশীপ বাতিল হওয়ার বিষয়েও আমি কিছু জানিনা। তাই এ ব্যপারে আমার কোন মন্তব্য নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ