ঢাকা, বুধবার 25 November 2020, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

মানবদেহের নতুন লালাগ্রন্থি আবিষ্কার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: মানবদেহের নতুন লালাগ্রন্থির সন্ধান পেয়েছেন গবেষকরা। চিকিৎসা শাস্ত্রে এতদিন মানবদেহে তিনটি প্রধান লালাগ্রন্থির কথা বলা হয়েছে। এগুলো হ'ল: প্যারোটিড, সাবম্যান্ডিব্যুলার ও সাব-লিঙ্গুয়াল। কিন্তু এখন নতুন একজোড়া লালাগন্থির সন্ধান পাওয়া গেছে যার নাম দেয়া হয়েছে 'টিউবারিয়াল স্যালিভারি গ্ল্যান্ড'।

সম্প্রতি 'জার্নাল রেডিয়োথেরাপি অ্যান্ড অঙ্কোলজি'তে প্রকাশিত নেদারল্যান্ডস ক্যান্সার ইনস্টিটিউট-এর দুই গবেষকের গবেষণাপত্র থেকে এই নতুন লালাগ্রন্থের কথা জানা যায় । 

১০০ জনের উপর পরীক্ষা চালিয়ে তাঁরা এই নতুন লালাগ্রন্থির বিষয়ে নিশ্চিত হন। এই জোড়া জোড়া লালাগ্রন্থি নাকের পিছনে থাকে যার দৈর্ঘ্যে  প্রায় দেড় ইঞ্চি, যা সন্নিহিত অঞ্চলকে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করে। 

গবেষকদ্বয় জানিয়েছেন, প্রস্টেট ক্যান্সার নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে তাঁরা নেহাতই আকস্মিকভাবে একজনের দেহে এই লালাগ্রন্থির সন্ধান পান। 

পরে আরও শ'খানেক মানুষের দেহে এই লালাগ্রন্থির অস্তিত্বের খোঁজে পরীক্ষা-নিরীক্ষা তাঁরা নতুন লালাগ্রন্থি দেখতে পান। সব ক্ষেত্রেই তা দেখার পর মৃত মানুষের শরীরে পোস্ট মর্টেম করেও গ্রন্থিটির উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে তা গবেষণাপত্রে প্রকাশ করেন তাঁরা। গবেষকদের দাবি, এই গ্রন্থির আবিষ্কার ক্যান্সার চিকিৎসায় কেমোথেরাপি দেওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। মাথা এবং ঘাড়ে রেডিয়েশন দেওয়ার সময় চিকিৎসকদের সতর্ক থাকতে হবে, যাতে লালাগ্রন্থি ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। সতর্ক না হলে খাওয়া/চিবানো বা কথা বলার ক্ষেত্রেও সমস্যায় পড়তে পারেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ