ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 November 2020, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

ইতালিতে একদিনে ১৫, ১৯৯ করোনা রোগী শনাক্তের নতুন রেকর্ড

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে করোনাভাইরাসে আবারও আগের সেই ভয়াবহ দিনগুলোর আতঙ্ক ফিরে আসছে ইতালিতে। প্রতিদিনই দেশটিতে নতুন রেকর্ড গড়ছে ভাইরাস সংক্রমণ।

ইতালির স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় বুধবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ১৯৯ জন।

আক্রান্তের এ সংখ্যা ইতালিতে মহামারীর শুরু থেকে এ পর্যন্ত দৈনিক হিসাবে সর্বোচ্চ এবং গত রোববারের রেকর্ড সংক্রমণ ১১,৭০৫ কেও ছড়িয়ে গেছে।

মঙ্গলবার ইতালিতে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ১০, ৮৭৪ জন। বুধবারই তা একলাফে অনেক বেড়ে গেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় এদিন করোনাভাইরাসে নতুন ১২৭ জনের মৃত্যুর তথ্যও জানিয়েছে। এ সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় ৮৯ জন বেশি। তবে তা গত মার্চ এবং এপ্রিলের সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যার চেয়ে এখনও কম।

ইতালিতে ভাইরাস সংক্রমণ গরমের সময়টিতে কিছুটা কমে গিয়ে গত কয়েকমাস থেকে আবার বাড়তে শুরু করেছে। এরই মধ্যে দেশজুড়ে বহু জায়গায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে এবং মহামারীর প্রথম ঢেউয়ের তুলনায় এবার তা আরও ব্যাপক।

আগেরবারের মতো এবারও করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত হচ্ছে লোম্বার্ডি। বুধবার সেখানে নতুন ৪ হাজার ১২৫ জনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। তাছাড়া, মিলান ও এর আশেপাশের এলাকায় গত ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ২ হাজার জন শনাক্ত হয়েছে।

হাসপাতালের ইনটেসসিভ কেয়ার ইউনিটগুলোতেও উত্তরোত্তর বাড়ছে রোগীর সংখ্যা। বুধবার ভর্তি হয়েছে ৯২৬ জন। মঙ্গলবার এ সংখ্যা ছিল ৮৭০ জন। আর জুলাইয়ের দ্বিতীয়ভাগে এ সংখ্যা ছিল ৪০ এর আশেপাশে।

ইতালিই কোভিড-১৯ মহামারীতে পর্যদুস্ত হওয়া ইউরোপের প্রথম দেশ। এই অঞ্চলে ফেব্রুয়ারিতে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে যুক্তরাজ্যের পর ইতালিতেই সবচেয়ে বেশি, ৩৬ হাজার ৫৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইতালির সরকার দেশজুড়ে দুই মাসব্যাপী কঠোর লকডাউন জারি করে গ্রীষ্মের মধ্যে মহামারী নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছিল, কিন্তু প্রাদুর্ভাবের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর এখন কর্তৃপক্ষ লকডাউন এড়াতে চাইছে।

সেকারণে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরা, রেস্তোরাঁ ও জনসমাগমের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে তারা।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ