মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ফুটবল মাঠে ফেরানোটা চ্যালেঞ্জিং: কাজী নাবিল

স্পোর্টস রিপোর্টার: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে গত মার্চ থেকেই দেশের অনেক খেলাই বন্ধ রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রিকেট মাঠে ফিরেছে, তেমনি আরও কয়েকটি ফেডারেশন অনুশীলন বা খেলা শুরু করে দিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত দেশে কোনও আন্তর্জাতিক খেলা হয়নি। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনই (বাফুফে) সবার আগে আগামী ১৩ ও ১৭ নবেম্বরে নেপালের বিপক্ষে দুটি ফিফা ফ্রেন্ডলি প্রীতি ম্যাচ আয়োজন করতে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনে নতুন চ্যালেঞ্জ দেখছেন বাফুফে সহ-সভাপতি ও জাতীয় টিমস কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ। কোভিড পরিস্থিতিতে ম্যাচ দুটি কীভাবে আয়াজন করা যায়, তা নিয়ে কাজ করছেন বাফুফে সংশ্লিষ্টরা। এ বিষয় নিয়ে গতকাল বুধবার অনলাইনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে কথা বলেছেন বাফুফের সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ এমপি। এক প্রশ্নের উত্তরে আবাহনী লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত ডিরেক্টর ইনচার্জ বলেছেন,অবশ্যই ম্যাচ দুটি আয়োজন  করা খুব চ্যালেঞ্জিং। তাই যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়সহ অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করে পুরো বিষয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মাঠের ফুটবল ফিরিয়ে আনতেই কাজ করে চলেছে বাফুফে। ফুটবলারদের ক্যাম্প শুরু হচ্ছে শুক্রবার।দিনকয়েকের মধ্যে কোচ জেমি ডেসহ অন্যরা ক্যাম্পে যোগ দেবেন। অনুশীলনের ভেন্যু তিনটি- বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম,কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম ও শেখ জামাল ধানমন্ডি মাঠ। করোনার আগে বাংলাদেশ সর্বশেষ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলেছে। সাত মাসেরও বেশি সময়  খেলার বাইরে ফুটবলাররা। ধরতে গেলে একেবারেই নতুন করে খেলায় ফিরবে দল।এবারও খেলোয়াড়দের আগে-পরে মিলিয়ে একাধিবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। খেলোয়াড়দের যতদূর সম্ভব বিচ্ছিন্ন করে রাখারও (আইসোলেটেড)  চিন্তাভাবনা রয়েছে বলে জানান জাতীয় টিমস কমিটির চেয়ারম্যান। নেপাল দলেরও একই অবস্থা হবে। এ নিয়ে আন্তমন্ত্রণালয়ের সভা আছে। সেখানে অনেক নির্দেশনা পাওয়া যাবে। সংশ্লিষ্ট সবাই সেখানে থাকবেন। তারা ভালো বুঝবেন। তখন বাস্তবায়ন করা যাবে সবকিছু।’ কোভিড-১৯-এর কারণে বিশ্বে বেশিরভাগ জায়গায় ফুটবল ম্যাচ হচ্ছে দর্শক ছাড়াই। নেপালের সঙ্গে দুটি ম্যাচে দর্শক-উপস্থিতি নিয়ে বাফুফের অন্যতম এই সহ-সভাপতি এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন, ‘পৃথিবীর অন্য দেশগুলোতে দেখতে পাচ্ছি খুব বেশি দর্শক থাকে না। আমরা এখানে স্বল্প সংখ্যক দর্শক রাখতে পারি। আন্তঃমন্ত্রনালয় সভায় সিদ্ধান্ত হবে। সেটাই বাস্তবায়ন করবো। একেবারেই দর্শকশূন্য খেলা অন্যরকম লাগবে। আশা করছি অল্পকিছু দর্শক যেন রাখতে পারি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ