শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

মাগুরায় যত্রতত্র এলপি গ্যাস ও পেট্রোল বিক্রি ॥ জনগণ উদ্বিগ্ন

মোঃ ওয়ালিয়র রহমান, মাগুরা সংবাদদাতা: মাগুরার রাস্তা, বাজার এলাকা ও সড়কের বিভিন্ন মোড়ে যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে পেট্রোলিয়াম (এলপি) গ্যাসের সিলিন্ডার, পেট্রোলসহ দাহ্য পদার্থ। দাহ্য পদার্থ বিক্রির নীতিমালা মানছেনা বিক্রেতারা। ফলে যে কোন সময় বিস্ফোরণ ঘটতে পারে এমন আশঙ্কা রয়েছে মাগুরা জনমনে। সদর উপজেলার আন্দলবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা আইনজীবী আবু বকর বলেন, বিধি অনুযায়ী আটটি গ্যাসপূর্ণ সিলিন্ডার মজুতের ক্ষেত্রে লাইসেন্স দিতে হবে, একই বিধিতে বলা আছে আগুন নেভানোর জন্য যথেষ্ট পরিমাণ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রপাতি এবং সরঞ্জামও মজুত রাখতে হবে। স্থানীয় ভায়নার মোড় এলাকার বাসিন্দা আঃ রশীদ বলেন- কোমল পানীয়র বোতলে ভরে পেট্রোল বিক্রি করা হচ্ছে। এসব দোকানের পেট্রোলের ক্রেতাকে অনেক দোকানী চেনেন না বা জানেনও না। এটি খুবই বিপদজনক। সমাজে নাশকতা মূলক কর্মকাণ্ড ঘটাতে পারে এমন লোকদের হাতে পেট্রোল চলে যেতে পারে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা সদরের এক দাহ্য পদার্থ বিক্রেতা বলেন, আমরা গরীব মানুষ। টুকটাক তেল বিক্রি করে কোন রকম সংসার চালাই। আমরা আইন কানুন সম্পর্কে কিছুই জানিনা। মাগুরা শহরের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আবু রায়হান বলেন, উপজেলার বাজার ও বাজারে যাতায়াতের সড়কের পাশের্^ মুদি এবং রকমারী দোকানেও পেট্রোলের পাশাপাশি দাহ্য পদার্থ বিক্রি করা হচ্ছে। উপজেলায় এ রকম প্রায় ২শ দোকান রয়েছে। অনেক দোকানে তারা এলপি গ্যাস সিলিন্ডার ভরে বিক্রি করা হচ্ছে। অনুমোদনহীন এসব দোকান গুলো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এ ব্যাপারে কিছু জানতে চাইলে মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা জানান, যাদের নামে অনুমোদন আছে তারাই শুধু এলপি গ্যাস সিলিন্ডার, পেট্রোলসহ দাহ্য পদার্থ বিক্রি করতে পারবেন। যত্রতত্র এলপি গ্যাস সিলিন্ডার,  পেট্রোলসহ দাহ্য পদার্থ বিক্রির কোন সুযোগ নেই। এ ধরনের কর্মকান্ডের সাথে যারাই জড়িত থাকুক না কেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ