সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মরহুম সদস্যদের স্মরণ করলো জাতীয় প্রেস ক্লাব

গতকাল রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে ক্লাবের ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ বছর মরহুম ১৮ সদস্য স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন সভাপতি মো. সাইফুল আলম -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মরহুম সদস্যদের স্মরণে স্মরণসভার আয়োজন করেছে জাতীয় প্রেস ক্লাব। গতকাল রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে ও কোষাধ্যক্ষ শ্যামল দত্তের পরিচালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর ফারুক, সহ-সভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বিএফইউজের মহাসচিব সাবান মাহমুদ, ডিইউজের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, মরহুম সদস্যদের পরিবারের সদস্যরা।
সভায় ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবকে আমরা সেকেন্ড হোম মনে করি। যারা আজ আমাদের মধ্যে নেই তাদের পরিবারের সঙ্গে আমাদের সৌহার্দ থাকবে, তারা আসবেন এ ক্লাবে। আমরা মিলেমিশে সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে নিতে চাই।
সাইফুল আলম বলেন, মানুষ যখন জীবিত থাকে তখন আমরা তাকে মনে রাখি আর মারা গেলে আমরা তাকে স্মরণ করি। কোনো প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে স্মরণ সভার করার নজির নেই, কিন্তু আমরা এবার করছি। আমরা মনে করি, আমাদের আনন্দের চেয়ে আমাদের মরহুম সহকর্মী, সদস্যদের স্মরণ করা জরুরি। এ আয়োজন কোনো প্রতিদান না, এটা আমাদের দায়িত্ব ছিল।
ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মরহুম সদস্যদের স্মরণে স্মরণসভার আয়োজন এতোটা কষ্টের-বেদনার জানা ছিল না। আমরা এর আগে কখনই ভাবিনি যে, আমাদের নানা অনুষ্ঠান বাদ দিয়ে আজকের এ স্মরণসভার আয়োজন করা হবে। আমরা গত বছরও অনেককে হারিয়েছি। এবার করোনার কারণে ১৮ জনকে হারাতে হয়েছে। হয়তো করোনা না হলে আমাদের অনেককে হারাতে হতো না। তবে সবার রূহের মাগফিরাত কামনা করি।
তিনি বলেন, করোনার ভয়াল থাবার কারণে আমরা অনেককে শ্রদ্ধা জানাতে পারিনি। ক্লাবে তাদের জানাযা হওয়ার কথা থাকলেও এটাও হয়নি অনেকের। তবে যারা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন তাদের দেখানো পথ, তাদের শেখানো সাংবাদিকতা আমাদের চলার পাথেয় হয়ে থাকবে।
যে ১৮ জন সাংবাদিককে স্মরণ করা হয় তারা হলেন- বাসসের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক ডিপি বড়ুয়া (দেবপ্রিয় বড়ুয়া), সাংবাদিক ও কথা সাহিত্যিক রাহাত খান, দৈনিক ইনকিলাবের সাবেক চীফ রিপোর্টার নুরদ্দিন ভূঁইয়া, দৈনিক দেশ বাংলার সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী, দি নিউজ টুডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু জাফর পান্না, বাসসের সাবেক সাব এডিটর ফজলুন নাজিমা খানম, দৈনিক দিনকালের সাবেক বার্তা সম্পাদক কবি মুশাররাফ করিম, দৈনিক সংগ্রামের সাবেক মফস্বল সম্পাদক কাজী মো. শামসুল হুদা, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাবেক প্রধান বার্তা সম্পাদক এবং কবি মাশুক চৌধুরী, দি ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের বার্তা সম্পাদক আবদুল্লাহ এম হাসান, দি নিউ এইজ’র সহযোগী সম্পাদক রওশন উজ জামান, বাংলার বাণী, ইউএনবি, বাসস, অবজারভার এবং নয়া দিল্লীতে বাংলাদেশ হাই কমিশনের মিনিষ্টার (প্রেস) এর দায়িত্ব পালনকারী বর্ষীয়ান সাংবাদিক ফারুক কাজী, দৈনিক নয়া দিগন্তের আহসান হামিদ, মুক্তিযোদ্ধা ও বর্ষীয়ান সাংবাদিক খোন্দকার মোজ্জাম্মেল হক, ডেইলী অবজারভারের খোন্দকার মুহিতুল ইসলাম, দৈনিক সকালের খবর ও দৈনিক আমার দিনের সম্পাদক রাশীদ উন নবী, এনটিভির যুগ্ম প্রধান বার্তা সম্পাদক আবদুস শহিদ এবং ভোরের কাগজের সাংবাদিক আসলাম রহমান। এরা সবাই চলতি বছরে মৃত্যুবরণ করেন।
সভায় মরহুম সদস্যদের পরিবারের সদস্যরা প্রিয়জনদের হারানোর বেদনা শেয়ার করেন। এ সময় সভাস্থলে উপস্থিত সবাই অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন। প্রেস ক্লাবের পক্ষে থেকে মরহুম সদস্যদের পরিবারবর্গের হাতে একটি করে শ্রদ্ধাঞ্জলি পত্র দেয়া হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ