শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

জাতীয় ফুটবল দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প এ মাসেই শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার: নেপালের বিপক্ষে দুটি ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচকে সামনে রেখে জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু হতে যাচ্ছে এ মাসেই। বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব স্থগিত হয়ে যাওয়ায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের মাঠে ফেরা। সেই অনিশ্চয়তা কিছুটা হলেও কেটেছে। নভেম্বরে ফিফার নির্ধারিত প্রীতি ম্যাচের সূচিতে যোগ হতে পারে বাংলাদেশের নাম। ১১ থেকে ১৯ নবেম্বর ফিফার প্রীতি ম্যাচ খেলার নির্ধারিত সূচি। এই দিনগুলোর মধ্যে নেপালের সঙ্গে দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। গত ২৩শে জানুয়ারি সর্বশেষ ম্যাচ খেলেছিল জাতীয় দল। এরপর থেকেই শুরু তাদের অপেক্ষা। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের বাকি চারটি ম্যাচ আগামী নভেম্বরে হওয়ার কথা ছিল।

ফিফা অবশ্য করোনার সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে বাছাইপর্বের ম্যাচগুলো ২০২১ সালে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়। এর আগে নেপালের বিপক্ষে ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ দুুটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের হেড কোচ জেমি ডে। গতকাল এই বৃটিশ কোচ  সাংবাদিকদের বলেছেন, এটা আসলে খুবই ভালো খবর। সত্যি বলতে আমি খুব করে চাইছিলাম ফিফা উইন্ডোতে দুটি ম্যাচ খেলতে। সেটা যেহেতু হচ্ছে তাই আমাদের দ্রুত প্রস্তুতি শুরু করে দিতে হবে।

জাতীয় দলের প্রস্তুতি নিয়ে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেন, ‘আমরা নেপালকে দুটি ম্যাচ খেলতে ঢাকায় আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। তারা খেলতে সম্মত হয়েছে। তারা সরকারের কাছ থেকে অনুমতিও নিয়েছে। তবে ম্যাচ দুটি কবে মাঠে গড়াবে সেটা আগামী সপ্তাহে চূড়ান্ত হবে। করোনার কারণে ফ্লাইট সিডিউলের বিষয় আছে, কোয়ারেন্টিনের বিষয় আছে। সবকিছু বিবেচনা করেই তারিখ ঠিক করবো। তারপর কোচ জেমিকে ঢাকায় আসতে বলবো অনুশীলন শুরু করতে।’ এসব কিছুই দ্রুত হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে বাফুফের এই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘আশা করি এই মাসের শেষ সপ্তাহে জেমি ডে ঢাকায় আসবেন। জেমি ঢাকায় আসার পরেই অক্টোবরের ২৭ কিংবা ২৮ তারিখে আমরা প্রস্তুতি শুরু করতে পারবো।উল্লেখ্য নেপাল ছাড়াও মালয়েশিয়া, ভুটান, মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কাকে প্রস্তাব দিয়েছিল বাংলাদেশ। এর মধ্যে করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেকেই খেলতে সম্মতি দেয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ