বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

কোভিড-১৯ প্রশ্নে জার্মানিতে কড়াকড়ি বাড়ছে

১ অক্টোবর, রয়টার্স : জার্মানিতে দ্বিতীয় দফায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ বাড়তে শুরু করায় এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আবারও কড়া বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। অনুন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশ তো বটেই যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের উন্নত দেশগুলোও করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে। সংক্রমণ যখন চূড়ায় তখন দেশগুলোর চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছিল।

সেই তুলনায় জার্মানি এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি মোটামুটি ভালোভাবেই সমালাতে পেরেছে। চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থার উপরও বাড়তি চাপ পড়েনি, ফলে সংক্রমণ বেশি হলেও দেশটি মৃত্যু হার কমিয়ে রাখতে পেরেছে। চলা-ফেরায় কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করলেও জনজীবন বলতে গেলে স্বাভাবিক ছন্দেই আছে। কিন্তু দেশটিতে দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণের হার যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে সরকার গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এ পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনার পর মেরকেল সঙ্কট মোকাবেলায় নতুন কিছু পদক্ষেপ ঘোষণা করেছেন বলে জানায় জার্মান সংবাদ মাধ্যম ডয়চে ভেলে। যদিও জার্মানির সব প্রান্তে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার এক না হওয়ায় সরাসরি কোনও সাধারণ বিধিনিয়মে একমত হতে পারেননি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা।  তবে মঙ্গলবার তাদের মধ্যে একটি রফা হয়েছে।  সেই বোঝাপড়ার আওতায় গোটা দেশজুড়ে নির্দিষ্ট ফর্মুলার ভিত্তিতে একই পদক্ষেপ নেওয়া হবে।  অর্থাৎ ঢালাও লকডাউনের বদলে স্থানীয় পর্যায়ে অবস্থা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

কোনো অঞ্চলে প্রতি লাখ মানুষের মধ্যে দৈনিক কতজন নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছেন তার উপর ভিত্তি করে বিধিনিয়ম স্থির করা হবে।  সংখ্যাটা ৩৫-এর বেশি হলে ঘরের মধ্যে ৫০ জনের বেশি মানুষের সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হবে। 

সেক্ষেত্রে ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোনো উৎসব-অনুষ্ঠানে ২৫ জনের বেশি মানুষের সমাবেশ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে সরকার।  আক্রান্তদের সংখ্যা ৫০ পেরিয়ে গেলে সমাবেশের ঊর্দ্ধসীমা ২৫ রাখা হবে এবং বাসভবনে ১০ জনের বেশি মানুষ যাতে একত্র না হন, সেই পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ