মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামিয়ে আনতে যৌথ নজরদারির ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার: সীমান্তে হত্যা শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে দুই দেশের নজরদারির ঘোষণা দিয়ে যৌথ বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ ও ভারত।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের যৌথ পরামর্শক কমিশন- জেসিসির ভার্চুয়াল বৈঠক শেষে এই বিবৃতি দেওয়া হয়। বৈঠকে তিস্তা চুক্তিসহ বাকি ছয় নদীর পানিবণ্টন সমস্যা দ্রুত সমাধানে নতুন করে আশা দিয়েছে ভারত। একই সাথে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন উদ্ভাবনে ভারত সফল হলে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেয়ার বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন জানান, তিস্তাচুক্তিসহ বাকি ছয় নদীর পানিবন্টন সমস্যা দ্রুত সমাধানে আগ্রহ দেখিয়েছে ভারত। একই সাথে দুদেশের যৌথ নদী কমিশন সভা দ্রুত আয়োজনের প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন সাংবাদিকদের জানান, ভারতে বাংলাদেশীদের বিনিয়োগকারীদের জন্য যে বৈষম্য নীতি ছিল তা দূর করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে নয়াদিল্লি। তিনি বলেন, দুদেশের মধ্যে যোগাযোগ বাড়ানো, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়ন, করোন পরিস্থিতি মোকাবেলাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বৈঠকে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে রোগী ও শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধায় সড়ক পথে ভারতের সীমান্ত খুলে দেওয়ার আহ্বান জানায় ঢাকা।
ঘণ্টাব্যাপী অনলাইনে চলা এ বৈঠকে ভারতে ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ মুসলমানদের জরিমানা কমিয়ে আনার বিষয়টিও ঢাকার পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়। নভেম্বরে এ সংক্রান্ত বৈঠকে বিষয়টি সুলাহা হবে বলেও আশা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বলেন, বিশেষ ব্যবস্থায় দুদেশের মধ্যে সীমিত আকারে আকাশ পথে যোগাযোগের প্রস্তাবে রাজি হয়েছে ঢাকা, এ নিয়ে কাজ করছে নয়াদিল্লি। ভারতের অর্থ সহায়তা দ্রুত ছাড় দিতে দুদেশের সচিব পর্যায়ের কমিটি গঠনের সিদ্ধান্তের কথাও জানানো হয় যৌথ বিবৃতিতে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, করোনার ভ্যাকসিন উদ্ভাবনে ভারত সফল হলে প্রতিবেশি দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অগ্রাধিকার পাবে বলে বৈঠকে আশ্বস্ত করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ