রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ধর্ষকদের গ্রেফতার ও সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার : সারাদেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে গতকাল রোববারও বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন-বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ কর্মসূচি আয়োজন করে। এদিকে ধর্ষণের বিচার দাবি করেছে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ। দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল গঠন করে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতারা। এক্ষেত্রে কে কোন দলের সেটা না দেখারও আহ্বান জানিয়েছেন তারা। গতকাল দুপুর ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে অনুষ্ঠিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তারা এই দাবি জানান।
পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ধর্ষণ, সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গণধর্ষণে জড়িত সবার দ্রুত গ্রেফতার এবং বিচার নিশ্চিত করে নিপীড়নমুক্ত ক্যাম্পাসের দাবিতে এই সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। সমাবেশ থেকে খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী তরুণীকে গণধর্ষণ এবং সাভারের ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের বিচারের দাবিও তোলা হয়। সমাবেশের সভাপতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাশ বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা যখনই উন্নয়ন এবং নারীর ক্ষমতায়নের মাধ্যমে দেশকে সামনের দিকে নিয়ে যায়, বিভিন্ন র‌্যাটিংয়ে যখন বাংলাদেশ প্রথম হয়ে যায় ঠিক তখনই দেখি ধর্ষণের এই মেগা সিরিয়াল। আমি হতবাক, একটি ধর্ষণ ঘটতে পারে, সেটির বিচার হবে। কিন্তু পরপর কীভাবে কয়েকটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটতে পারে। নুরুল হক নুররা যেহেতু মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হয়েছে আমার মনে হয় তারা বাঁচার তাগিদে পরিকল্পনামাফিক বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে দায়ী করতে চায়।
ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরকে ‘পাগল', ‘বিকারগ্রস্ত’ আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনি এই ডাকসুতে পাস করেছেন সেই তথাকথিত বোনদের অনুকম্পা নিয়ে।  আপনার যদি এটা মনে থাকতো তাহলে সবার আগে আপনি এই ধর্ষণের শিকার বোনটির পাশে দাঁড়াতেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সমগ্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিত্ব করে।  সুতরাং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সে শিক্ষার্থী ডান করুক বা বাম করুক যদি জঙ্গি সংগঠনের সাথে সংশ্লিষ্ট না থাকে তাহলে তার যেকোনো অধিকার আদায়ের আন্দোলনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ রাজপথে থাকবে।’
এমসি কলেজের ঘটনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এমসি কলেজে যারা ধর্ষণের সাথে জড়িত তারা কোন সংগঠন করে সেটি বিবেচ্য বিষয় নয়। আমরা ছাত্রলীগই কিন্তু সর্বপ্রথম এমসি কলেজে জড়িত সবার বিচার চেয়েছি।’ ধর্ষণের পক্ষে যদি ঢাবিতে আরেকটি মিছিল হয় তাহলে মিছিল থেকে কেউ বাড়িতে ফিরতে পারবে না বলেও ছাত্র অধিকার পরিষদের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন সনজিত। সমাবেশে ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, ডাকসুর ছাত্রলীগ মনোনীত প্রতিনিধিরা। এসময় তারা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল গঠন করে ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি তুলেন। সমাবেশে ছাত্রলীগের সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য ফখরুল আমিন ফরহাদ, বিজয় একাত্তর হল সংসদের সহ সভাপতি সজিবুর রহমান, সহসাধারণ সম্পাদক আবু ইউনুসসহ সংগঠনটির বিভিন্ন স্তরের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সিলেটের মেয়রের পদযাত্রা : এমসি কলেজের ছাত্রাবাস এলাকায় গণধর্ষণের ঘটনায় সিলেটে পুলিশ কমিশনার কার্যালয় অভিযুখে পদযাত্রা করেছেন সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। পরে তিনি পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে বৈঠক করে ঘটনাকারী ধর্ষকদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান। সিলেট সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল আব্দুল আলীম শাহ জানিয়েছেন- এমসি কলেজের ক্যাম্পাসে গৃহবধু ধর্ষণের প্রতিবাদে দুপুরে নগর ভবন থেকে পদযাত্রা শুরু করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও কাউন্সিলররা। এ সময় তারা উপশহরে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে গিয়ে পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়ার কাছে ধর্ষকদের গ্রেফতার ও শাস্তি দাবি করেন।
পিরোজপুর: নারীর প্রতি সহিংসতা, সারাদেশে শিশু ও নারী ধর্ষণ এবং সিলেটে স্বামীর সামনে স্ত্রীকে ছাত্রনেতাদের গণধর্ষণ, সাভারে কিশোরী নীলা রায় হত্যা, খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী নারীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে পিরোজপুরে মানববন্ধন করা হয়েছে। শহরের টাউন ক্লাব চত্বরে মানববন্ধন আয়োজন করে জেলা মহিলা পরিষদ।
মৌলভীবাজার: হোস্টেলে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় মৌলভীবাজারে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে। প্রগতিশীল ছাত্রজোট মৌলভীবাজার জেলা শাখার আয়োজনে জেলা শহরের চৌমুহনা চত্বরে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি পিনাক দেব। বক্তব্য দেন ছাত্র নেতা ফাহিম আহমদ, আব্দুর রায়হান শিপু, সুদীপ্ত চক্রবর্তী প্রমুখ। ঘণ্টাব্যাপী এ সমাবেশে বক্তারা বলেন, একের পর এক ছাত্রলীগের নেতারা দেশের বিভিন্ন স্থানে এরকম দুষ্কর্ম করার পর সঠিক বিচার হয়নি। এতে ছাত্রলীগের এসব নেতাকর্মী বেপরোয়া হয়ে উঠছে। বিচারহীনতার সংস্কৃতি চলতে থাকায় সমাজে এ রকম অপকর্ম হচ্ছে। প্রতিবাদ সমাবেশে এমসি কলেজের ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান তারা।
রাজবাড়ী: সারাদেশে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে সকালে প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখার উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। নারীর প্রতি সহিংসতা-হত্যা-ধর্ষণের মতো ঘটনায় দ্রুত বিচারের দাবিতে যশোরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ যশোর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ফারদিনা রহমান এনির নেতৃত্বে যশোরের কয়েকটি সামাজিক সংগঠনের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় বক্তরা বলেন, সারা দেশের ধারাবাহিক ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে কোনো না কোনো ক্ষমতাবান ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সম্পৃক্ত। নিপীড়ন ও ধর্ষণকারীরা জানে তাদের কোনো বিচার হবে না, শাস্তি হবে না। এ কারণেই তারা যা খুশি তাই করছে। বিগত বছর চেয়ে চলতি বছরে ধর্ষণ অনেক গুণ বেড়ে গেছে। বক্তরা সিলেট-খাগড়াছড়িসহ সারাদেশে ধর্ষণের সাথে জড়িতদের অতিদ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ