ঢাকা, মঙ্গলবার 20 October 2020, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

এখন কূটনীতির ধরন বদলে গেছে: প্রধানমন্ত্রী

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এখন কূটনীতির ধরন বদলে গেছে। শুধু রাজনৈতিক কূটনীতি নয়, এখন সময় অর্থনৈতিক কূটনীতির। সেভাবেই বাংলাদেশের কূটনীতিকদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু যে পররাষ্ট্রনীতি দিয়ে গেছেন ‘সকলের সাথে বন্ধুত্ব কারো সাথে বৈরিতা নয়’-এই নীতিতেই চলছে বাংলাদেশ।’

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জাতিসংঘ অধিবেশনে ঐতিহাসিক বাংলা ভাষণের ৪৬ বছর পূর্তি এবং ফরেন সার্ভিস একাডেমি ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্ব করোনা থেকে মুক্তি পাবে, এটাই আমাদের আকাঙ্ক্ষা। আবার অর্থনীতির চাকা সচল হোক, সব মানুষ সাধারণভাবে জীবন-যাপন করুক এটাই আমরা চাই। এজন‌্য বিশ্বকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘মাঝে মাঝে দুর্যোগ আসে। বাংলাদেশের অবস্থানের কারণে প্রাকৃতিক এসব দুর্যোগ আমাদের মোকাবিলা করতে হয়। মাঝে মাঝে মানবসৃষ্ট দুর্যোগও মোকাবিলা করতে হয়। এ দেশে স্থিতিশীল সরকার থাকবে তা অনেকে চায় না। আমাদের সব অবস্থা মোকাবিলা করতে হয় এবং সেটা আমরা করতে পেরেছি। কারণ আমরা জনগণের আস্থা অর্জন করতে পেরেছি।’

করোনার কারণে জাতিসংঘে যেতে পারেননি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার এই সময় জাতিসংঘে থাকার কথা। করোনার কারণে যেতে পারিনি। আমি ১৬বার জাতিসংঘে ভাষণ দিয়েছি। এবার ১৭তম ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল। সেখানে বিশ্বের অন‌্যান‌্য দেশের নেতাদের সঙ্গে দেখা হয়, মতবিনিময় হয়। সেই সুযোগটা এবার করোনার জন‌্য হলো না। তবু আশা করি করোনা থেকে দেশ ও বিশ্ব মুক্ত পাক।’ 

‘দেশকে এগিয়ে নিতে অনেকগুলো পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে’ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘সরকারের মূল লক্ষ্য দেশ ও মানুষের উন্নয়ন। দীর্ঘসময় ক্ষমতায় থাকার কারণেই আজ মানুষ সুফল পাচ্ছে। দেশে উন্নয়ন দৃশ্যমান হচ্ছে।’

‘করোনায় যাতে কম ক্ষতি হয় সে লক্ষে সরকার কাজ করছে’ জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘দেশে যেনো কোনোভাবেই খাদ্যের সংকট না হয় সে লক্ষে সরকার খাদ্য উৎপাদন, মজুদ ও সরবরাহের যথাসাধ্য চেষ্টা করছে।’

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ