ঢাকা, শুক্রবার 30 October 2020, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

গোপালগঞ্জে বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে ৩ আরোহী নিহত

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে যাত্রীবাহী নৈশ কোচ ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মুকসুদপুর উপজেলার কলেজ মেড়ে এ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, মুকসুদপুর উপজেলার চন্ডীবর্দী গ্রামের আনু সরদারের ছেলে ফয়সাল সরদার (৩৫), একই গ্রামের সফি শেখের ছেলে লিয়াকত শেখ (২৫) ও গোপীনাথপুর গ্রামের বিল্লাল ঠাকুরের ছেলে আল আমিন (২২)।

মুকসুদপুর থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, একটি মোটরসাইকেলে করে তিন আরোহী মুকসুদপুর থেকে গোপালগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন।এ সময় মোটরসাইকেলটি ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে উঠতে গেলে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী গোল্ডেন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের (ঢাকা-মেট্রো-ব-১৪৭৬৯৪) সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে মোটরসাইকেল থেকে তিন যাত্রী মহাসড়কে ছিটকে পড়লে ঘটনাস্থলে ফয়সাল নিহত হন। এসময় বাসটি মোটরসাইকেলটিকে নিয়ে দুই কিলোমিটার দূরে ফরিদপুরের শালতা এলাকায় গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে মহাসড়কের পাশের একটি গাছে ধাক্কা লেগে আগুন ধরে যায়।

পরে পুলিশ ও মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিস খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আল আমিনকে মৃত ঘোষণা করেনা। মারাত্মক আহত লিয়াকতকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে লিয়াকত মারা যায়। ঘটনার পর বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের অপর একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসের আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। তবে বাসের কোন যাত্রী আহত হননি। দুর্ঘটনার পরপরই ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে মহাসড়কের দুই পাশে শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে।

মুকসুদপুর ফায়ার সর্ভিসের স্টেশন অফিসার রাজীব হোসেন জানান, মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিভিয়ে দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি উদ্ধার করে। এক ঘণ্টা পর ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ