ঢাকা, রোববার 25 October 2020, ৯ কার্তিক ১৪২৭, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

গাজীপুরে অপহরণের ১২ ঘণ্টা পর শিশুকে উদ্ধার করল র‌্যাব

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: গাজীপুর থেকে অপহৃত শিশু নিশাত বাবুকে (৩) ৬ ঘন্টা পরে কালিয়াকৈরের চন্দ্রা হতে জীবিত উদ্ধার করেছে র‍্যাব-১। স্মার্টফোন কেনার জন্য শিশু নিশাতের বাবার অফিসের কর্মচারী এ অপহরণের ঘটনা ঘটায়।

গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা থেকে ওই শিশুকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণের মুলহোতা মোস্তাফিজুর রহমানকে আটক করেছে র‌্যাব। অপহৃত শিশু নিশাত বাবু দিনাজপুরের চিরিরবন্দর থানার যৌতগ্রাম এলাকার মোঃ বকুল মিয়ার একমাত্র ছেলে ।

৩ বছর বয়সী নিশাত। পুরো একটি দিন পরিবার ছাড়া। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে আউটপাড়ার বাসা থেকে চকলেটের লোভ দেখিয়ে অপহরণ করা হয় নিশাতকে। পরে তার বাবার মুঠোফোনে বার্তা পাঠিয়ে মুক্তিপণ চায় অপহরণকারী। এ বার্তার সূত্রধরেই ঢাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে চন্দ্রা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার ও অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়। একমাত্র সন্তানকে ফিরে পেয়ে আত্মহারা বাবা-মা।

নিশাতের বাবা বলেন, আমার ছেলেকে অপহরণের পর টাকা দাবি করে। আমি যে চাকরি করি এতে এত টাকা দেওয়া তো সম্ভব না। তাই আমি র‍্যাবের আশ্রয় নেই।   

নিশাতের বাবার অফিসের পিয়ন মোস্তাফিজ, স্মার্টফোন কেনার টাকা যোগাড় করতেই তাকে অপহরণ করে বলে জানায় র‌্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে ধারালো ছুরিও উদ্ধার করা হয়।

গাজীপুর পোড়াবাড়ি র‍্যাব-১ ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল্লাহ্ আল মামুন বলেন, অপহরণকারী মোস্তাফিজ অফিসে কিছু টাকা চুরি করে। টাকা চুরির পরের ভিক্টিমের বাবা যখন তাকে চাকরিচ্যুত করে, তখন তার মাথায় ভুত চাপে সে একটি চাকু কেনে। ওই বাচ্চাটি তার কোলে আসত। বাচ্চাটিকে নিয়ে সে ঢাকার উদ্দেশে পালিয়ে যায়। সে বাচ্চাটিকে নিয়ে সারাদিন ঢাকা ঘোরে। 

শিশুটির বাবা জানায়, অপহরণকারী কর্মচারী হলেও তাদের পরিবারের সঙ্গেই বসবাস করতো। এরই সুযোগে নিশাতকে অপহরণ করে সে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ