মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

আইসিসি থেকে বিচারপতি খায়রুল হকের নাম প্রত্যাহার করায় সরকারকে ইআরআইয়ের ধন্যবাদ

লন্ডন প্রতিনিধি : আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) বিচারক নিয়োগে সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হকের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়ায় বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছে লন্ডন ভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন ইকুয়াল রাইটস ইন্টারন্যাশনাল (ইআরআই)। গত সোমবার অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে খায়রুল হকের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়ায় তাদের গৃহিত কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় সংগঠনটি। গত ২২ মে দৈনিক মানবজমিনে আইসিসিতে খায়রুল হকের মনোনয়নের খবর প্রকাশ হলে দেশ বিদেশে মানবাধিকার সংগঠনগুলো তা প্রত্যাহারের দাবি তুলে। এরই প্রেক্ষিতে ৩১ মে ‘খায়রুল হক‘স এপয়েন্টমেন্ট ইন আইসিসি ঃ লিগাল এন্ড ইথিকাল এনালাইসিস’ শিরোনামে অনলাইনে সেমিনারের আয়োজন করে ইআরআই। এছাড়া তারা চেঞ্জডটঅর্গ এ ‘রিসিস্ট খায়রুল হক‘স আইসিসি এপয়েন্টমেন্ট’ (আইসিসিতে খায়রুল হকের মনোনয়ন বাতিল কর) শিরোনামে স্বাক্ষর সংগ্রহের পিটিশন করে। ইআরআইসহ দেশ বিদেশে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর প্রতিবাদের প্রেক্ষিতে নেদারল্যান্ডের বাংলাদেশ প্রতিনিধি ২৯ জুলাই খায়রুল হকের মনোনয়ন পত্রটি প্রত্যাহার করে নেয়। ৪ আগস্ট আইসিসি’র অ্যাসেম্বলী অব স্টেটস্ (এএসপি)এর ষষ্ঠ ব্যুরো মিটিংয়ের সিদ্ধান্তের নথিতেও বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে।
ইআরআইয়ের চেয়ারম্যান মাহবুব আলী খানশূরের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান নউসিন মোস্তারী মিয়া সাহেবের পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যারিস্টার আফজাল জামি। সংবাদ সম্মেলনে আমেরিকার নিউজার্সি ইউনিভার্সিটি থেকে জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ে গ্রেজুয়েট সাংবাদিক ইমরান আনসারী বক্তব্য রাখেন। তিনি বিশ্বের নানা অগণতান্ত্রিক কাজের বিরুদ্ধে ইআরআইয়ের কর্মসূচীতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ইআরআইয়ের মানবাধিকার কর্মী আল আমিন, মাছউদুল হাসান, আবু জাফর আব্দুল্লাহ, ফরিদুল ইসলাম, সায়েদ জাকারিয়া, মোঃ আজিজুর রহমান, আলী শাহাজাদা, মোহাম্মদ তারেকুল ইসলাম, ফয়েজ উল্লাহ প্রমুখ। চেয়ারম্যান ও প্রধান অতিথিকে প্রশ্ন করেন সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মুকুল, শফিকুল ইসলাম জুয়েল, জুবায়ের আহমেদ ও ফজলে রহমান পিনাক। এক প্রশ্নের জবাবে মাহবুব আলী খানশূর জানান, বাংলাদেশ সরকার আইসিসিতে খায়রুলের হকের মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় ইআরআই তাদের পরবর্তী কর্মসূচী বাতিল করেছে। সংবাদ সম্মেলনে ব্যারিস্টার আফজাল জামি আইসিসি থেকে খায়রুল হকের মনোনয়ন প্রত্যাহরের দাবীতে নানা কর্মসূচি নেয়ায় ইআরআইকে ধন্যবাদ জানান। এসময় তিনি ৩১ মে’র সেমিনারে খায়রুল হকের বিষয়ে উল্লেখিত আলোচনা উপস্থিত সবাইকে স্মরণ করিয়ে দেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের ১২ বছরের শাসনামলে অন্তত ১২ জন বিচারপতি অবসরে গেছেন। তাদের অন্তত তিনজন ছিলেন আইসিসির বিচারক হওয়ার মতো যোগ্যতা সম্পন্ন। কিন্তু খায়রুল হক তার কর্মজীবনে কাজের মাধ্যমে প্রমান করেছেন তিনি সম্পূর্ণ দলীয় একজন বিচারপতি। আইসিসির বিচারক হতে হলে নৈতিক মূল্যবোধ, নিরপেক্ষতা ও সততার যে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত থাকার কথা তার কোনটাই ছিলো না বিচারপতি খায়রুল হকের। এছাড়া আইসিসিতে বিচারপতি হতে হলে অপরাধ বিষয়ে ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ে বিশেষজ্ঞ যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিদের প্রধান্য দেয়া হয়। কিন্তু বিচারপতি খায়রুল ওই দুইটার কোন বিষয়ে অভিজ্ঞ ছিলেন না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ