ঢাকা, বুধবার 30 September 2020, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ১২ সফর ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

আশ্বাসের পরও হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আসেনি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: গত রোববারের আগে টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজের চালান আজ বুধবার থেকে রপ্তানির অনুমতি দেওয়ার কথা থাকলেও বিকেল ৩টা পর্যন্ত অনুমতি মেলেনি। ফলে পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাকগুলো সীমান্তে আটকে রয়েছে। আজ বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) থেকে আটকে থাকা ট্রাকগুলো দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে  থেকে আসার কথা কথা ছিল, কিন্তু সেগুলো আসতে না পারায় এ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা।

তবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, বর্ডারে আটকে থাকা পেঁয়াজ দু’একদিনের মধ্যে প্রবেশ করার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। অসাধু ব্যবসায়ীদের জন্য জেল-জরিমানা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মিয়ানমার থেকে ১২/১৩শ টন পেঁয়াজ লোড হয়েছে, যা কিছুদিনের মধ্যে আসবে। একমাস আমাদের সাশ্রয়ী হতে হবে। এক মাসের মধ্যে সাপ্লাই চেইন ফুল করে দেবো।

গত সোমবার ভারত সরকার তাদের অভ্যন্তরীণ বাজারে সংকটের কারণে মূল্যবৃদ্ধির অজুহাতে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এ কারণে ভারত অংশে ২৫০-৩০০ পেঁয়াজ বোঝাই ভারতীয় ট্রাক দেশে অপেক্ষায় আটকা পড়ে।

এদিকে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের খবার আসার সাথে সাথে গতকাল মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বন্দরের বাজারগুলোতে দামে বড় ধরণের প্রভাব পড়ে। এতে করে ৪০ টাকার পেঁয়াজ একলাফে ৮০-১০০ টাকায় বেচাকেনা হলেও বুধবার থেকে পুনরায় পেঁয়াজ আমদানি হতে পারে এমন খবরে দাম কমে ৬০-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ ভারতের ব্যবসায়ীদের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, গত রোববার ২০০ মেট্রিকটন পেঁয়াজ বাংলাদেশে রপ্তানির জন্য টেন্ডার করা হয়েছিল, সেই পেঁয়াজ ভারত সরকার বাংলাদেশে রপ্তানির জন্য অনুমতি দিতে পারে। ধারণা করা হচ্ছে আজকের মধ্যে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি শুরু হবে।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ