বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

শ্রীলংকার দেয়া শর্ত মেনে সফর করবে না বাংলাদেশ -বিসিবি সভাপতি

স্পোর্টস রিপোর্টার :  শ্রীলংকার দেয়া কঠিন শর্তে সফর করবে না বাংলাদেশ। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান স্পষ্ট করেই তা জানিয়ে দিয়েছেন। বিসিবি সভাপতি জানিছেন. তাদের পাঠানো বিভিন্ন শর্ত কোনভাবেই মানা সম্ভব নয়। যদিও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এখনও শ্রীলংকা সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে বিসিবির এই অবস্থানের কারণে ধরেই নেওয়া যায়, এ মুহূর্তে শ্রীলংকা সফরে যাওয়া হচ্ছে না বাংলাদেশের। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু  কোয়ারেন্টিনসহ আরও বেশ কিছু বিষয়ে শ্রীলংকার কঠিন শর্ত দেওয়ায় সফরটি এখন আটকে গেলো।  গতকাল দুপুরে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের মাঠে আসেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান। তাদের সঙ্গে বিসিবির অন্য পরিচালকসহ প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরীও ছিলেন। সেখানেই ঘণ্টা দুয়েকের সভায় বসে বেশ কিছু ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি। তবে শ্রীলংকা সফরের ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত  নেয়নি বিসিবি। নাজমুল হাসান বলেছেন,‘যে টার্ম অ্যান্ড কন্ডিশন শ্রীলংকা দিয়েছে, তা ইতিহাসে বিরল। এরকম নিয়ম-কানুনের মধ্যে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াই সম্ভব না। এই তথ্য ওদের জানিয়ে দেবো।’ তিনি আরও বলেছেন,‘আমরা যা ভেবেছিলাম, তার ধারের কাছেও নেই। আবার অন্যান্য দেশে যেগুলো চলছে, সেগুলোর ধারের কাছেও নেই। অন্যান্য দেশে সাত দিনের কোয়ারেন্টিনের মধ্যে জিম, ট্রেনিং শুরু করতে পারে। ওদের প্রস্তাবে যেটা দেখলাম, ১৪ দিন হোটেল রুম থেকেই বের হওয়া যাবে না। খাওয়ার জন্য বের হতে পারবে না।’  শ্রীলংকার কঠিন শর্ত নিয়ে তিনি বলেন,‘ ওরা কী বলতে চাচ্ছে বুঝতে পারছি না। এটা ছেলে খেলা না, আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ। এভাবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ খেলা যায় না। সবদিক বিবেচনা করে আমরা বুঝলাম, এখন ওখানে যাওয়া কোনওভাবে সম্ভব না। আমরা আজই জানিয়ে দেবো, আমাদের চিন্তাভাবনা ও বাস্তবতার সঙ্গে বিষয়গুলোর কোনও মিল নেই। ওরা  যেটা দিয়েছে, আমরা মনে করি এটা দিয়ে কোনও অবস্থাতেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব না। তারপর দেখি ওরা কী বলে। ওদের ওখানে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা হচ্ছে। এতগুলো দল খেলছে। কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, আমাদের একটি টিমের জন্য বিরাট ঝামেলা কীভাবে হয়ে গেল। কেউ ঘর  থেকে বের হতে পারবে না ১৪ দিন। এটা তো আসলে হতে পারে না।’ শ্রীলংকা সরকারের দেয়া শর্ত গুলোর মধ্যে রয়েছে- বাংলাদেশ দল শ্রীলংকায় অবতরণের পরপরই  হোটেলেবন্দী থাকতে হবে। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এ সময়ে তিনবার করোনা টেস্ট হবে। তিনবার করোনা টেস্টের ফল নেগেটিভ হলেই মাঠে নামার অনুমতি পাবেন ক্রিকেটাররা। শ্রীলংকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এ প্রস্তাব শনিবার বিসিবিকে পাঠিয়েছে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। সেই চিঠিতে আরও কিছু শর্ত জুড়ে দেয় লংকার ক্রিকেট বোর্ড। প্রথমত, বাংলাদেশ দলকে অবশ্যই দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত, ৬৫ জন নয় ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফসহ সর্বোচ্চ ৩০ জন লঙ্কা সফরে যেতে পারবেন। তৃতীয়ত, বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের কয়েক দফা করোনা টেস্টে অংশ নিতে হবে। যদিও এর আগে এক চিঠিতে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছিল, এক সপ্তাহের  কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বাংলাদেশকে। বিসিবিও সেভাবেই পরিকল্পনা করছিল। কিন্তু আগের মৌখিক কথার সঙ্গে পাঠানো চিঠির কোন মিল না। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৩টি টেস্ট ম্যাচ খেলতে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। প্রস্তুবিত সূচি অনুসারে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহেই শ্রীলংকা উদ্দেশ্যে বিমানে ওঠার কথা টাইগারদের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ