মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

চবির ৩৪১১৫ লক্ষ টাকা সংশোধিত এবং ২০২০-২০২১ অর্থবছরের ৩৫১৮৫ লক্ষ টাকা মূল বাজেট উপস্থাপন

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেছেন, দেশে সৎ, দক্ষ, যোগ্য এবং আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর মানব সম্পদ উৎপাদন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম লক্ষ্য। এ লক্ষ্য অর্জনে মানসম্পন্ন শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদেরকে বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সক্ষম করে গড়ে তুলতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বদ্ধপরিকর। কোভিড-১৯ ভাইরাসের আক্রমনে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশ বিপর্যন্ত হয়ে পড়েছে। শিক্ষা ব্যবস্থায়ও পড়েছে বিরূপ প্রভাব। এ সংকট কাটিয়ে উঠতে সারাবিশ্বে করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলছে। গতকাল রোববার বেলা ১১ টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এ আর মল্লিক ভবনে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে অনুষ্ঠিত চবি সিনেট এর ৩২ তম বার্ষিক সভায় সভাপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেন, দেশের অন্যতম উচ্চ শিক্ষা-গবেষণা প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ অক্ষুন্ন রেখে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, সম্পদের সুরক্ষা ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা এবং উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণার উপযুক্ত পরিবেশ সমুন্নত রাখতে বর্তমান প্রশাসন অঙ্গীকারাবদ্ধ। তিনি আরও বলেন, “করোনা পরিস্থিতি উন্নতির পর বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ড আরও গতিশীল করা হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনায় সর্বক্ষেত্রে সততা, ন্যায়-নিষ্ঠা ও ন্যায্যতার প্রশ্নকে আগ্রাধিকার দেয়া হবে।”
ভিসি আরও বলেন, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন কর্তৃক রাজস্ব বাজেটের গবেষণা মঞ্জুরি খাতে বরাদ্দকৃত ৭৫.০০ লক্ষ টাকা গবেষণা প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন বিভাগ/ইনস্টিটিউটের সংশিষ্ট শিক্ষকদের মধ্যে অনুদান মঞ্জুরি দেয়া হয়েছে। তাছাড়া, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে উন্নয়ন ও রাজস্ব বাজেটের আওতায় বিদেশে উচ্চতর ডিগ্রী (মাষ্টার্স/পিএইচডি) কোর্সে অধ্যয়ন এবং বিদেশে সেমিনার ও কনফারেন্সে যোগদানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে ২৭.১০ লক্ষ টাকা অনুদান মঞ্জুরি দেয়া হয়েছে।
সভায় ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ৩৪১১৫ লক্ষ টাকা সংশোধিত এবং ২০২০-২০২১ অর্থবছরের ৩৫১৮৫ লক্ষ টাকা মূল বাজেট উপস্থাপন করেন চ.বি. রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এস এম মনিরুল হাসান। সিনেট সভায় এ বাজেট অনুমোদিত হয়।
ভিসির ভাষণ ও বাজেটের ওপর প্রাণবন্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন চবি সিনেট সদস্য সাংসদ ওয়াসিকা আয়েশা খান, অর্থ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় অতিরিক্ত সচিব এখলাসুর রহমান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) আফতাব হোসাইন প্রামাণিক, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী, সিনেট সদস্য প্রফেসর ড. মো. দানেশ মিয়া, প্রফেসর এ বি এম আবু নোমান, প্রফেসর সিরাজ উদ দৌল্লাহ, প্রফেসর ড. মুস্তাফিজুর রহমান ছিদ্দিকী, প্রফেসর বেনু কুমার দে, প্রফেসর ড. মো. মাহবুবুর রহমান, প্রফেসর জমির উদ্দিন আহমদ, ড. মোহাম্মদ মঞ্জুর-উল-আমিন চৌধুরী, প্রফেসর এম এ গফুর, জনাব এস এম ফজলুল হক, প্রফেসর ড. কাজী এস এম খসরুল আলম কুদ্দুসী, গোলাম সাব্বির সাত্তার, প্রফেসর মনসুর উদ্দিন আহমদ এবং প্রফেসর ড.  মোহাম্মদ নাসিম হাসান। এছাড়াও সিনেট সভায় সিনেটরবৃন্দ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ