ঢাকা, বুধবার 30 September 2020, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ১২ সফর ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

আজীবন সুস্থ থাকার উপায়-১

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: সুস্থ থাকার জন্য সুস্থ লাইফস্টাইলের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর।কারণ, আমাদের খাদ্যাভাস, ঘুম, শরীরচর্চা, দুশ্চিন্তামুক্ত থাকার বিষয়গুলো আমাদের লাইফস্টাইল বা জীবন-যাপন অভ্যাসের সাথে সম্পর্কিত এবং এই বিষয়গুলো সরাসরি আমাদের শরীর ও মনের উপর প্রভাব ফেলে।তাই সুস্থ থাকতে হলে আমাদেরকে অবশ্যই সুস্থভাবে জীবন-যাপন করতে হবে বা সুস্থ লাইফস্টাইল মেন্টেইন করতে হবে।

সুস্থ থাকতে হলে আমাদের মধ্যে বিদ্যমান অসুস্থতা বা স্বাস্থ্য-সমস্যাগুলো আগে দূর করতে হবে।এ লক্ষ্যে আজ আমরা কয়েকটি সাধারণ অসুস্থতা নিয়ে আলোচনা করব, যেগুলো সুস্থ থাকার পথে অন্তরায় হিসেবে কাজ করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য(Constipation): 

কোষ্ঠকাঠিন্য একটি যন্ত্রণাদায়ক স্বাস্থ্য সমস্যা।এটি একটি অস্বাভাবিক শারীরিক অবস্থা যখন একজন ব্যক্তি সহজে মলত্যাগ করতে সক্ষম হন না।অনেকের টয়লেটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে যায়, কিন্তু পেট পরিষ্কার হয় না। এ নিয়ে অস্বস্তিতে ভোগেন তাঁরা। মলত্যাগ যদি সপ্তাহে তিনবারের কম অথবা পরিমাণে খুব কম হয়, অনেকক্ষণ ধরে চেষ্টা করেও মলত্যাগ না হয়, অথবা মল অস্বাভাবিক রকমের শক্ত বা শুকনো হয়, তাহলে তাকে কোষ্ঠকাঠিন্য বলে। বিভিন্ন কারণে এ সমস্যা দেখা দেয়। তবে অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ও খাদ্যাভ্যাস; রাত জাগা, ঘুম কম হওয়া, দুশ্চিন্তা করা, ব্যায়াম না করা কোষ্ঠকাঠিন্যের পেছনে প্রধান ভূমিকা পালন করে। তাই এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন ও স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তির কয়েকটি সহজ উপায় রয়েছে।যেমন:

১।পর্যাপ্ত পানি ও বেশি বেশি শাক-সবজি খেতে হবে এবং শাক-সবজি ভাল করে চিবিয়ে খেতে হবে।

২। দুশ্চিন্তা করা যাবে না।সব সময় রিলাক্স মুডে থাকতে হবে।

৩।ব্যায়াম করতে হবে, বিশেষ করে যোগ ব্যায়াম।ব্যায়াম না করলে, হাঁটাহাঁটি না করলে কোষ্ঠকাঠিন্য হয়।

৪।রাত জাগা যাবে না এবং পর্যাপ্ত ও মানসম্মত ঘুম উপভোগ করতে হবে।ঘুম কম হওয়ার সাথে কোষ্ঠকাঠিন্যের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে।

৫।খাবার গ্রহণের আগে ভিনেগার, প্রোভাইটিক্স খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে।এছাড়া রাতে খাবার পর চিয়াসিড, তোকমা, ইসুপগুলের ভুসি-এগুলো খেতে পারেন।

সূত্র: ডাঃ জাহাঙ্গীর কবিরের ফেসবুক ভিডিও থেকে 

ডিএস/এএইচ 

 

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ