শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

৬ মাসের মধ্যে বিমানবন্দর-বাদাঘাট সড়ক চার লেনের কাজ শুরু হবে

সিলেট ব্যুরো : আগামী ৬ মাসের মধ্যে সিলেটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বিমানবন্দর-বাদাঘাট বাইপাস চার লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হবে। ২-৩ মাসের মধ্যে একটি প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি করা হবে। বর্তমানে দুই লেনের বাইপাস সড়কটি পরিদর্শনে এসে এমনটাই জানিয়েছে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের প্রধান।
গতকাল শনিবার দুপুরে ওই প্রতিনিধি দলটি সিলেটে এসে সড়ক পরিদর্শন শেষে তাঁরা সিলেটের রাজনীতিবিদ ও পেশাজীবীদের সাথে মতবিনিময় করেন। প্রতিনিধি দলটি সিলেটে বিমানবন্দর-বাদাঘাট-তেমুখী বাইপাস সড়কের বাস্তব অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন। এছাড়া প্রস্তাবিত নকশায়ও নজর দেয় দলটি। নকশায় ত্রুটি থাকায় প্রতিনিধি দলের প্রধান অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি দ্রুত সংশোধিত নকশা তৈরি করতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ সিলেট কার্যালয়ের সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।
প্রতিনিধি দলে বাংলাদেশ সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম প্রধান জাকির হোসেন, উপ-প্রধান শামিমউজ্জামান, সওজের রোড সেফটি স্ট্যান্ডার্ড বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর সিদ্দিকী, পরিকল্পনা বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নাহিন রেজা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সওজ সিলেটের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আনোয়ারুল আমিন, অতিরিক্ত প্রকৌশলী তুষার সিনহা, নির্বাহী প্রকৌশলী রিতেশ বড়ুয়া প্রতিনিধি দলের সঙ্গে ছিলেন। এই প্রতিনিধি দলটি পরে রাজনীতিবিদ ও পেশাজীবীদের সাথে মতবিনিময় করে। নগরীর রায়নগরে সওজের রেস্টহাউজে মতবিনিময়ে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এটিএম শোয়েব, মেট্রোপলিটন চেম্বারের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি আবদুল জব্বার জলিল, সিলেট উইমেন্স চেম্বারের সভাপতি স্বর্ণলতা রায়, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক প্রমুখ।
মতবিনিময়কালে প্রতিনিধি দলের প্রধান বাংলাদেশ সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম প্রধান জাকির হোসেন বলেন, বাইপাস সড়কটির বাস্তব অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্যই আমরা সিলেটে এসেছি। আমাদের পর্যবেক্ষণ সংশ্লিষ্ট দফতরে জানাবো। আগের প্রস্তাবিত নকশা সংশোধনের মাধ্যমে সড়কটির পূর্ণাঙ্গ প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি করা হবে। এতে ২-৩ মাস সময় লাগতে পারে। আর ছয় মাসের মধ্যে কাজ শুরু হওয়ার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।
উল্লেখ্য, প্রায় সাড়ে ১২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের বিমানবন্দর-বাদাঘাট সড়কটি পাথরবাহী ট্রাক চলাচল, বিমানবন্দর অভিমুখীদের সুবিধা এবং পর্যটকবাহী যান চলাচলের জন্য চার লেনে উন্নীত করার দাবি দীর্ঘদিনের। ২০১৬ সালে এ বিষয়ে একটি প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়। পরের বছর চার লেন সড়কের সাথে দুটি সার্ভিস লেন যুক্ত করে সংশোধিত প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়। বছরখানেক আগে মন্ত্রণালয়ে ফের চার লেনের প্রস্তাবনা যায়। কিন্তু সড়কটি চার লেনে উন্নীত করার কাজে অগ্রগতি হচ্ছিল না। সম্প্রতি সড়ক সচিব বাইপাস সড়কটিকে দুই লেনেই রাখার পক্ষে মত দেন। কিন্তু সিলেটের সচেতন মহল থেকে এর প্রতিবাদ জানানো হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ