ঢাকা, সোমবার 28 September 2020, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১০ সফর ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

বৈরুত বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৭

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বন্দর এলাকায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৭ জনে দাঁড়িয়েছে। আহতের সংখ্যা  ছাড়িয়েছে ৫ হাজার। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এমটাই জানানো হয়েছে। খবর আল-জাজিরার।

বিবিসি জানিয়েছে, শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকাল পর্যন্ত বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে অন্তত ১৫৭ জনে দাঁড়িয়েছে। তাছাড়া এখন পর্যন্ত প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ফলে শহরটিতে আগামী দুই সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে প্রশাসন। তাছাড়া ভয়াবহ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বন্দরটির ১৬ কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে।

ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় রাজধানী বৈরুত যেন মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। চারদিকে শুধু লাশ আর লাশ। হাসপাতালেও ঠাঁই পাচ্ছেন না আহতরা।

বিলাসবহুল হোটেল, আবাসিক ভবন সবকিছু এখন ধ্বংসস্তূপ। মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) বিকালে রাজধানী বৈরুতের বন্দর এলাকায় জোড়া বিস্ফোরণ ঘটে। এই ধ্বংসলীলার মধ্যে ৩ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে লেবাননের সরকার।

বিস্ফোরণস্থল থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে থাকা ভবনগুলোও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। লেবাননে চরম গৃহযুদ্ধ চলার সময়ও এতটা ধ্বংসযজ্ঞ দেখা যায়নি বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

এখনও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের জন্য এখনও চলছে উদ্ধার তৎপরতা। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

লেবাননের স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বিকালে ঘটা ওই বিস্ফোরণে বৈরুতের ৩ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। বুধবার দুই সপ্তাহের জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে সেখানে। যাদের গাফিলতিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তাদের মধ্যে ১৬ জনকে বৃহস্পতিবার আটক করা হয়েছে। বাকিদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে রয়টার্স জানিয়েছে, বিস্ফোরণে বৈরুত শহর ভূমিকম্পের মতো কেঁপে উঠেছিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা যায়, বৈরুতের বন্দর এলাকা থেকে বড় গম্বুজ আকারে ধোঁয়া উড়ছে, এর কিছুক্ষণের মধ্যে বিকট বিস্ফোরণে গাড়ি ও স্থাপনা উড়ে যেতে দেখা যায়।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ