রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ঈদের পর অনুশীলনে ফিরবেন মুমিনুল

স্পোর্টস রিপোর্টার : ঈদের পর ব্যক্তিগত অনুশীলনের দ্বিতীয় পর্বে যোগ দেবেন একাধিক জাতীয় দলের ক্রিকেটার। সেই তালিকায় সবচেয়ে বড় নাম টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। বাংলাদেশের টেস্ট দলপতি ঈদ করবেন ঢাকায়। ঈদের পরদিন কক্সবাজারে নিজ বাড়িতে যাবেন। সেখানে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ পালন করে ঢাকায় ফিরে অনুশীলনে যোগ দেবেন। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক জানিয়েছেন, আসন্ন ঈদুল আযহার পর মাঠে  ট্রেনিংয়ে ফিরবেন। ফিটনেস ট্রেনিংয়ের সাথে পুরোদমে স্কিল ট্রেনিংও শুরু করবেন। গত ১৮ জুলাই থেকে ঐচ্ছিক অনুশীলন শুরু করেছেন ক্রিকেটাররা। সেই তালিকায় মুশফিকসহ ছিলেন মিথুন, ইমরুল, শফিউল, শান্ত, মিরাজরা। জাতীয় দলের বাইরের সোহান, এনামুল, তাসকিন, খালেদ, নাসুম, মেহেদী ও রানারা যোগ দেন অনুশীলনে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রত্যেকেই পৃথক অনুশীলন করেছেন। মুমিনুল বলেন,‘ঈদের পর অনুশীলনে যোগ দেব। এজন্য বিসিবিকে জানিয়েছি। বিসিবি অনুশীলনের সূচি দিলে সেভাবেই যোগ দেব।’ এর আগে সুযোগ থাকলেও করোনা ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে অনুশীলনে যোগ দেননি মুমিনুল। তবে সতীর্থদের অনুশীলন চিত্র পাল্টে দিয়েছে মুমিনুলের ভাবনা। তারও বিশ্বাস জন্মেছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে বাইরে অনুশীলন করা সম্ভব। মুমিনুল আরো বলেন, ‘আমি মনে করি এখনও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ শুরু করা যাবে। যদি পরিস্থিতি ভালো হয় বিসিবি অবশ্যই আমাদের মাঠে ফেরাবে, ম্যাচ খেলার সুযোগ করে দেবে। আমরা জানি না আগামী সপ্তাহে কিংবা ঈদের পর কি হবে, পরিস্থিতি কোন দিকে যায় এজন্য আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। ঐচ্ছিক অনুশীলন যারাই শুরু করবো প্রত্যেককে আইসিসির গাইডলাইন ফলো করতে হবে।’ মূলত ক্রিকেটারদের আগ্রহের প্রেক্ষিতেই মহামারির সময়েও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি আইসিসি'র গাইডলাইন অনুসরণ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকায় ৯ দিন এবং চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনায় ৭ দিনব্যাপী ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের ব্যবস্থা করে দিয়েছিল। যেখানে অংশ নিয়েছেন জাতীয় দল ও এর বাইরে থাকা ১৩ ক্রিকেটার। ওই পর্বের অনুশীলন থেকে নিজেকে বিরত রাখলেও ঈদের পর নিজেকে আর ঘরবন্দী রাখতে চাইছেন না এই টাইগার টেস্ট  স্পেশালিস্ট। সবকিছু ঠিক থাকলে ঈদের এক সপ্তাহ পরেই আঁটঘাঁট বেধে অনুশীলনে নেমে পড়তে চাইছেন মুমিনুল। করোনার দাপট কম হলে হয়ত কক্সবাজারে যাওয়ার কথা ভাবতেন। কিন্তু করোনা তার সেই পথ অবরুদ্ধ করে দিয়েছে। অগত্যা ঈদুল ফিতরের মতো ঈদুল আযহাও ঢাকাতেই পালন করবেন। তবে কোরবানি দিচ্ছেন কক্সবাজারে। মুমিনুল বলেন ‘ঈদ ঢাকাতেই করছি। করোনার কারণে যাওয়া হচ্ছে না। তবে ঢাকায় কোরবানি দিচ্ছি না। আমার  দেশের বাড়ি কক্সবাজারে দিচ্ছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ