শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলেন ঢাকার সূচনা

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে এবার মিলিয়নিয়ার হলেন রাজধানী দক্ষিণ কাফরুলের গৃহিণী সূচনা রহমান। দেশব্যাপী চলমান ‘ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন ৭’ -এর আওতায় এই সুযোগ পান তিনি। 

গত বুধবার (২২ জুলাই, ২০২০) রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর ওয়ালটন প্লাজায় আনুষ্ঠানিকভাবে সূচনার হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক মো. হুমায়ূন কবীর। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটনের মিরপুর জোনের এরিয়া ম্যানেজার অতনু রায় এবং ক্রেডিট মনিটরিং তাপস রঞ্জন বিশ্বাস প্রমুখ।

উল্লেখ্য, অনলাইনে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারা দেশে চলছে ওয়ালটনের ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৭। এর আওতায় ওয়ালটন ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন এবং মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনে ক্রেতারা পেতে পারেন এক মিলিয়ন বা ১০ লাখ টাকা। রয়েছে লাখপতি হওয়ার সুযোগসহ কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। এ সুযোগ থাকছে ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ পর্যন্ত। 

সিজন ৭- এ ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার হয়েছেন ছয় জন ক্রেতা। তারা হলেন- গাজীপুরের দর্জি ওয়াজেদ আলী, নওগাঁর গামছা বিক্রেতা সোলায়মান হক, রাঙ্গামাটির মুরগির খামারি চাইথোয়াইঅং মারমা, দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের অফিস সহকারী রণজিত চন্দ্র রায় এবং চট্টগ্রামের মাছচাষী নাজিম উদ্দিন এবং ঢাকার গৃহিণী সূচনা রহমান।

গত ১৩ জুলাই মিরপুর ১০ নম্বর ওয়ালটন প্লাজা থেকে সূচনা ২৫,২১০ টাকায় একটি ফ্রিজ কিনেন। ফ্রিজ কিনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে তিনি তা রেজিস্ট্রেশন করেন। সেই সুবাদে পেয়ে যান ১০ লাখ টাকা।

সূচনা বলেন, ‘মোবাইলে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার ম্যাসেজ দেখে বিশ্বাস হচ্ছিল না। যখন প্লাজার ম্যানেজার বললেন, আপা আপনি ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার হয়েছেন। তখন খুবই অবাক হই। ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনে এমন কিছু পাওয়া যায় বলে আমার জানা ছিলো না। ক্রেতাদের জন্য এমন সুবিধা দেয়ায় ওয়ালটন কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ।’ 

ওয়ালটন ফ্রিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমান মল্লিক জানান, ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতিতে ক্রেতার নাম, মোবাইল ফোন নম্বর এবং বিক্রি করা পণ্যের মডেল নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য ওয়ালটনের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে, ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে গেলেও দেশের যেকোনো ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত কাক্সিক্ষত সেবা পাচ্ছেন গ্রাহক। সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারছেন। আর এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে মিলিয়নিয়ারসহ নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। 

ফ্রিজে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধার পাশাপাশি কম্প্রেসরে ১২ বছরের গ্যারান্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারা দেশে রয়েছে ৭৪টি সার্ভিস সেন্টার। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ