বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

শিক্ষক-কর্মচারীগণ অত্যন্ত অসহায় ও মানবেতর জীবন-যাপন করছেন -অধ্যাপক মুজিব

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আর্থিক প্রণোদনা প্রদানের আহবান জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বিবৃতি দিয়েছেন। 

গতকাল বৃহস্পতিবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, দেশে বিপুল সংখ্যক বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে কিন্ডারগার্টেন, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা। এসকল প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক-কর্মচারী কর্মরত আছেন প্রায় ৯ লক্ষাধিক। করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। 

তিনি বলেন, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ মূলত টিউশন ফি ও ছাত্রদের বেতন আদায়ের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। করোনার কারণে তাদের আর্থিক আয়ের উৎস পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বাড়ি ভাড়া, শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন দিতে না পারায় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আর্থিক দুরবস্থা ও ভর্তুকি প্রদানের কারণে অনেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিক্রি করে দিচ্ছেন। আবার অনেকে শিক্ষকতার পেশাও বদল করতে বাধ্য হচ্ছেন। আয় না থাকায় ঢাকা শহর ছেড়ে অনেকে পরিবার নিয়ে গ্রামে চলে যাচ্ছেন। এক কথায় বলা যায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীগণ অত্যন্ত অসহায় ও মানবেতর জীবনযাপন করছেন। 

তিনি আরো বলেন, আমরা মনে করি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এসকল শিক্ষকগণ হলেন জাতির বিবেক ও মানুষ গড়ার কারিগর। আমাদের সন্তানদের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার পিছনে রয়েছে তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম। সরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারি এসকল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাখাতে উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে। কিন্তু খুবই পরিতাপের বিষয় সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্নখাতে আর্থিক প্রণোদনার ঘোষণা দেয়া হলেও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো সহযোগিতার কথা ঘোষণা করা হয়নি।

তাই দেশের স্বার্থে বেসরকারি এ বিপুল সংখ্যক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য অনতিবিলম্বে আর্থিক প্রণোদণা ঘোষণা করার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ