ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 August 2020, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

লাল কার্ডের নাটকীয়তা, সুয়ারেজের রেকর্ডে ডার্বি জয় বার্সার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: নানান বিতর্ক কাটিয়ে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়ে ছন্দে ফেরে বার্সা। আর ফুরফুরে মেজাজে কাতালান ডার্বিতে ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু'তে এস্পানিওলকে ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে বার্সেলোনা। বার্সার হয়ে একমাত্র গোলটি করেন সুয়ারেজ। ম্যাচ জেতানো গোলটির মাধ্যমে বার্সেলোনার ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা বনে যান লুইস সুয়ারেজ।

স্প্যানিশ লা লিগা জয়ের দৌড়ে এখনো বেশ পিছিয়ে আছে বার্সেলোনা। লিগ লিডার রিয়াল মাদ্রিদের থেকে পাক্কা চার পয়েন্টে পিছিয়ে ছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। লিগের এমন টানটান মুহুর্তে কাতালান ডার্বিতে বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) রাত দুইটায় ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু'তে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী এস্পানিওলকে আতিথ্য দেয় বার্সেলোনা।

পয়েন্ট টেবিলের হিসেবে বার্সেলোনা ২য় স্থানে আর সবচেয়ে তলানির ক্লাব এস্পানিওল। সেই সঙ্গে পরিসংখ্যানও কথা বলছিল বার্সেলোনার পক্ষেই। লা লিগায় দুই দলের শেষ ২১ দেখায় অপরাজিত ছিল বার্সা, এই ম্যাচ দিয়ে যে সংখ্যা দাঁড়াল ২২'এ। তবে কাতালান ডার্বিতে রোমাঞ্চের কমতি ছিল না। প্রথমার্ধ ম্যাড়ম্যাড়ে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে জমে ওঠে কাতালান ডার্বি। প্রথমার্ধে গোলশূন্য থেকেই বিরতিতে যায় দুইদল।

বিরতি থেকে ফিরে দলে এক পরিবর্তন আনেন সিতিয়েন, নেলসন সেমেদোর পরিবর্তে আনসু ফাতিকে মাঠে নামান। দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটেই লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়ে ফাতিকেই। এখানেই নাটকীয়তার শেষ এখানেই নয়। ম্যাচের ৫৪ মিনিটে এস্পানিওলের ফরোয়ার্ড পল লোজানো লাল কার্ড দেখেন। ম্যাচের বাকি আধা ঘণ্টা দুই দলই ১০ জনের দল নিয়ে খেলে।

এরপর নিজেদের আক্রমণ বাড়িয়ে দেয় বার্সা। বার্সার আক্রমণভাগের বাঁ প্রান্ত থেকে ডি বক্সে থাকা মেসির উদ্দেশ্যে বল বাড়ান অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান। মেসির জোরালো শট ব্লক হলে বল পেয়ে যান সুয়ারেজ। ডি বক্সের ভেতর বল পেয়ে আর ভুল করেননি সুয়ারেজ। গোল করে দলকে ১-০'তে এগিয়ে নেন তিনি। আর এই গোলটিই ১৯৫তম গোল করেন সুয়ারেজ। তাতেই বার্সেলোনার ইতিহাসের ৩য় সর্বোচ্চ গোলদাতা বনে যান।

এই জয়ে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলে রিয়াল মাদ্রিদকে সরিয়ে ওপরে উঠতে না পারলেও পয়েন্ট ব্যবধান কমেছে। যদিও রিয়ালের সামনে সুযোগ থাকছে সামনের ম্যাচ জিতলে আবারও পয়েন্ট ব্যবধান আবারও ৪ পয়েন্ট চলে আসবে। এস্পানিওলের বিপক্ষে জয়ের পর ৩৫ ম্যাচ শেষে ২৩ জয়, ৭ ড্র এবং ৫ হারে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে বার্সেলোনা। আর ৩৪ ম্যাচে ২৩ জয়, ৮ ড্র এবং ৩ হারে ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ। অন্যদিকে লা লিগায় ২৭ বছর পর অবনমনের শিকার হতে যাচ্ছে এস্পানিওল।

-সারাবাংলা

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ