মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

দেশে কুরবানিযোগ্য পশু ১ কোটি ১৯ লাখ

স্টাফ রিপোর্টার: এ বছর মাঠ পর্যায়ের রিপোর্ট অনুযায়ী কুরবানিযোগ্য মোট পশুর সংখ্যা প্রায় ১ কোটি ১৯ লাখ। আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে কুরবানির পশুর হাটে সুস্থ-সবল গবাদি পশু সরবরাহ ও বিক্রয় নিশ্চিতে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা বসছে আগামী বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই)।  মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে বেলা ১১টায় জুম প্ল্যাটফর্মে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সভার নোটিশ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩১ জুলাই বা ১ আগস্ট দেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। সভার কার্যপত্রে বলা হয়েছে, গতবছর হৃষ্টপুষ্টকরণের আওতায় কুরবানির জন্য সারাদেশে গবাদি পশুর সংখ্যা ছিল সর্বমোট ১ কোটি ১৭ লাখ ৮৮ হাজার ৫৬৩টি। এ বছর মাঠ পর্যায়ের রিপোর্ট অনুযায়ী কুরবানিযোগ্য মোট পশুর সংখ্যা ১ কোটি ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ৫০০টি। এরমধ্যে গরু ও মহিষ ৪৫ লাখ ৩৮ হাজার, ছাগল ও ভেড়া ৭৩ লাখ ৫৫ হাজার ও অন্যান্য চার হাজার ৫০০টি। এ বছর গবাদিপশুর পর্যাপ্ত যোগান রয়েছে বলেও কার্যপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
এতে আরও বলা হয়, নিষিদ্ধ রাসায়নিক দ্রব্য স্টেরয়েড, হরমোন অ্যান্টিবায়োটিক ছাড়া নিরাপদ পদ্ধতিতে গরু হৃষ্টপুষ্টকরণ কার্যক্রম বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ ও প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মধ্যে নিবিড় সমন্বয় প্রয়োজন। পশু খাদ্যে ভেজাল বা নিষিদ্ধ অ্যান্টিবায়োটিক হরমোন ইত্যাদির ব্যবহার রোধে নিয়মিত সার্ভিলেন্স, প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত রাখতে হবে।
গতবছরের মতো এবারও যাতে যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে সন্তুষ্টির সঙ্গে পশু কোরবানির মাধ্যমে ঈদুল আজহা উদযাপিত হয় সে লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সব বিভাগের সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ প্রয়োজন বলে কার্যপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
সভায় কুরবানির ভেটেরিনারি সেবা প্রদানের জন্য স্টল বরাদ্দ, ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম গঠন ও দায়িত্ব প্রদানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
এছাড়া দেশের বাইরে থেকে গরু আনা বন্ধে ব্যবস্থা, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশবান্ধব কুরবানি নিশ্চিত, পশুর হাটে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিমের ক্যাম্প স্থাপন ও প্রয়োজনীয় লজিস্টিক সাপোর্ট দেয়ার বিষয়ে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলেও কার্যপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, স্থানীয় সরকার বিভাগ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন দফতর ও সংস্থার প্রতিনিধিরা জুমের মাধ্যমে সভায় যোগ দেবেন বলে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ