ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 August 2020, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

এবার বাঁশ দেয়া হচ্ছে ময়মনসিংহে!

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: দেশের বিভিন্ন জায়গায় নানা সময় উন্নয়ন প্রকল্পে রডের পরিবর্তে বাঁশ দিয়ে নির্মাণ কাজ করার তথ্য সংবাদ মাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে আসলেও এই উন্নয়নের নামে এই 'বাঁশ দেয়ার' কর্ম নির্বিঘ্নেই চলছে। এবার ময়মনসিংহেও দেখা গেলো সেই বাঁশকাণ্ড!

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার আছিম পাটুলী ইউনিয়নের গোদারবন্ধে একটি কালভার্ট নির্মাণে রডের পরিবর্তে বাঁশ ব্যবহার করা হয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকাবাসীদের মাঝে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

পরে কালভার্ট নির্মাণ কাজে রডের বদলে বাঁশ ব্যবহারের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে গত শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহ স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক একেএম গালিব খান এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ছিদ্দিক কালভার্ট নির্মাণস্থল পরিদর্শন করেন।

সেদিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ছিদ্দিক সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। অতিদ্রুত দোষীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এদিকে গতকাল রোববার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে ময়মনসিংহ স্থানীয় সরকার বিভাগের একটি টেকনিক্যাল টিম।

ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বরাদ্দ থেকে আছিম পাটুলী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে ২টি প্রকল্পে সাড়ে ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ২ লাখ টাকা বরাদ্দে মোহাম্মদ আলী মেম্বারকে প্রকল্প কমিটির সভাপতি এবং দেড় লাখ টাকা বরাদ্দে মহিলা মেম্বার রাশিদাকে সভাপতি করা হয়।

মোহাম্মদ আলীর প্রকল্পে রডের বদলে বাঁশের কাবাড়ি (টুকরা) ব্যবহার করে শুক্রবার (৩ জুলাই) বন্ধের দিন নিচের অংশের ঢালাই শেষ করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই ছবি ভাইরাল হওয়ায় কালভার্টের বাঁশ দিয়ে করা পাটাতন শ্রমিক দিয়ে সরিয়ে ফেলেন মেম্বার মোহাম্মদ আলী।

কালভার্ট নির্মাণে বাঁশ ব্যবহার করা হয়েছে সত্যতা স্বীকার করে ইউপি সদস্য দুলাল মিয়া বলেন, ‘কালভার্ট ভেঙ্গে পুনরায় নির্মাণ করা হচ্ছে।’

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ