শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

উপসর্গ নিয়ে ৯ দিন ঘুরেও নমুনা দিতে পারলেন না এক সাংবাদিক

স্টাফ রিপোর্টার: বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৯ দিন ঘুরেও নমুনা দিতে পারেননি স্থানীয় সাংবাদিক এ এস এম জসিম। অসুস্থ শরীর নিয়ে বারবার হাসপাতালের বারান্দায় ঘুরে ঘুরে কোনও সমাধান না পেয়ে চিকিৎসা ব্যবস্থার উপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। সাংবাদিক জসিম দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকার পাথরঘাটা সংবাদদাতা ও স্থানীয় অনলাইন পোর্টাল পাথরঘাটা নিউজের বার্তা সম্পাদক।
জসিম জানান, গত মাসের ২৫ তারিখ থেকে নিয়মিত নমুনা দেয়ার জন্য ঘুরতেছি। আজ কাল বলে ঘুরিয়ে বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময়ে আবার আসতে বলে। বৃহস্পতিবার সকালে এসে জানতে পারি পরিবহন সংকটের কারণে দু'দিন ধরে বন্ধ করোনা পরীক্ষার কার্যক্রম। পরে অনেক অনুরোধ করে নমুনা সংগ্রহ করে নিজ উদ্যোগে বরগুনা জেলা হাসপাতালে পৌঁছে দেয়ার চুক্তিতে রাজি হলেও একপর্যায়ে তাতেও অপারগতা স্বীকার করে শুক্রবার পুনরায় আসতে বলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা আবুল ফাত্তাহ। কিন্তু আজকের এসেও নমুনা দিতে ব্যর্থ হয়ে হতাশা নিয়ে ফিরে এসেছি।
তিনি আরও জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা আবুল ফাত্তাহ চেষ্টা করলে রোগীদের কোন ভোগান্তিতে পড়তে হতো না। বরং ডা. আবুল ফাত্তাহ নিজের দায়িত্বগুলো অন্যের উপর দোষ চাপিয়ে নিজে এড়িয়ে চলেন। পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কয়েকজন আবাসিক চিকিৎসকসহ জরুরি বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিত একাধিক স্বাস্থ্যকর্মী।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা জানান, আমরা সার্বক্ষণিক কোনো ধরনের প্রোটেকশন ছাড়াই সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমরা পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন আছি কিন্তু আমি আক্রান্ত কিনা তাও পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হতে পারছি না। পাথরঘাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তা বারবার বলছে পরিবহন সংকটের কারণে নমুনা বরগুনা জেলা শহরে পৌঁছাতে পারছে না।
বরগুনা জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ হুমায়ূন খান শাহিন জানিয়েছেন, তিনি পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন নমুনা সংগ্রহ করে মোটরসাইকেল অথবা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অ্যাম্বুলেন্স যোগে সদর হাসপাতালে পৌঁছাতে। সেখান থেকে পরীক্ষার জন্য বরিশাল পাঠানো হবে। কিন্তু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে খোঁজ নিয়ে জানা যায় আজকেরও কোন নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ