শুক্রবার ৩১ মার্চ ২০২৩
Online Edition

পুলিশের আরও এক সদস্যের করোনায় মৃত্যু; মোট ৪৩

স্টাফ রিপোর্টার: করোনায় (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবুল কালাম আজাদ (৩৫) নামে পুলিশের এক সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মারা গেছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে মারা যান ওই পুলিশ সদস্য। এই নিয় পুলিশ বাহিনীর ৪৩ জন সদস্য করোনায় প্রান হারালেন। এদিকে সারাদেশে গতকাল পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯৫৮ জন।
পুলিশ সদর দফতরের সূত্র জানায়, এএসআই  আবুল কালাম আজাদ বুধবার দুপুর একটায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এএসআই (নিরস্ত্র)আজাদ ২০০৬ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে কনস্টেবল পদে যোগদান করেন। এএসআই আবুল কালাম রাজশাহীর জেলা পুলিশের সদস্য হিসেবে অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জিআরও ছিলেন। রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এএসআই আবুল কালামের গ্রামের বাড়ি বগুড়ার শেরপুর উপজেলায়। তিনি স্ত্রীকে নিয়ে রাজশাহী মহানগরীর তেরোখাদিয়া এলাকায় ভাড়া থাকতেন। তার ছয় বছর এবং ছয় মাসের দুই সন্তান রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাকে গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হবে।
জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম জানান, এএসআই আবুল কালাম আজাদের করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ায় গত ২২ জুন তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে তার শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে রেখে তার চিকিৎসা চলছিল। তবে ২৪ জুন সমস্যা বেড়ে গেলে রামেক হাসপাতালের ২৯নং করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে রেফার্ড করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
এদিকে পুলিশ সদর দফতরের তথ্য অনুযায়ী, সারাদেশে বুধবার পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯৫৮ জন। এরমধ্যে ঢাকা মহানগর পুলিশের সদস্য রয়েছেন দুই হাজার ৩০৩ জন। কোয়ারেন্টিনে আছেন ১১ হাজার ৮২৩ জন। আইসোলোশনে আছেন ৪ হাজার ৩১৫ জন। এ পর্যন্ত মোট মারা গেছেন ৪৩ জন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ছয় হাজার ৮৬৫ জন পুলিশ সদস্য। এরমধ্যে প্রায় পাঁচ হাজার পুলিশ সদস্য আবারও কাজে যোগ দিয়েছেন। পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর ড. বেনজীর আহমেদ বিরামহীনভাবে করোনা প্রতিরোধে দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও সময়োপযোগী দিকনির্দেশনায় আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের সুস্থ করতে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও ব্যস্ত সময় পার করছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ