শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

গণমাধ্যমের স্বরকে নিস্তব্ধ করতে সরকার একের পর এক কালো আইন করেছে -মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার: গণমাধ্যমের স্বরকে নিস্তব্ধ করার জন্যই সরকার একের পর এক কালো আইন প্রণয়ন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দিন এবং ঐ পত্রিকার রিপোর্টার সেলিম সরকারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি একথা বলেন।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দিনসহ রিপোর্টার সেলিম সরকারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের মত প্রকাশের স্বাধীনতার ওপর চরম আঘাত। গণমাধ্যমের স্বরকে নিস্তব্ধ করার জন্যই একের পর এক কালো আইন প্রণয়ন করেছে সরকার। মির্জা আলমগীর বিবৃতিতে গণমাধ্যমের ওপর জুলুম-নির্যাতন বন্ধ করে মহান স্বাধীনতার প্রকৃত চেতনা গণতন্ত্র এবং স্বাধীন মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে ফিরিয়ে দেয়ার আহবান জানিয়ে অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যহারের জোর দাবি জানান।
অপর এক বিবৃতিতে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দিন এবং ঐ পত্রিকার রিপোর্টার সেলিম সরকারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়েরকৃত মামলাকে অন্যায়, অন্যায্য ও চক্রান্তমূলক বলে আখ্যায়িত করে অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।
প্রতিবাদ ও নিন্দা:  বিদ্যমান করোনা সংকটকালে দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পরিবর্তে বাংলাদেশ পাটকল সংস্থার ২৯টি শিল্পে লে-অফ শ্রমিক এবং তাদের পরিবারের লক্ষ লক্ষ নারী পুরুষ ও শিশুকে নিশ্চিত মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ার যে অমানবিক অসময়োচিত ও অন্যায় উদ্যোগ নিয়েছে- তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব। গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি বলেন যে, যখন কোন শ্রমিক কর্মচারীকে ছাঁটাই না করার শর্তে আমরা দেশের সব শিল্প রক্ষার জন্য সরকারী সহায়তা ও সহজ শর্তে ঋণ প্রদানের দাবী জানাচ্ছি এবং সিপিডিসহ বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান যখন আইন করে এই দুঃসময়ে লে-অফ শ্রমিক ছাঁটাই কিম্বা কারখানা বন্ধ না করার দাবী জানাচ্ছে- তখন সরকারের এমন গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নাগরিকদের প্রতি দায়িত্বহীনতার পরিচায়ক। আমরা এমন কোন অন্যায় ও অসময়োচিত সিদ্ধান্ত না নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, শ্রমজীবি মানুষ ও শিল্প বিরোধী এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে শ্রমিক কর্মচারীদের শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক কর্মসূচীর প্রতি আমরা সমর্থন জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ