শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

করোনায় পুলিশের আরও এক সদস্যের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) সংক্রমিত হয়ে মো. তৌহিদুল ইসলাম (৪৩) নামে পুলিশের আরও এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এদিকে গতকাল শুক্রবার সকাল পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, পুলিশে করোনা আক্রান্ত ১০ হাজারের কাছাকাছি।
মারা যাওয়া তৌহিদুল ইসলাম ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক উত্তরের বিমানবন্দরে অঞ্চলের কনস্টেবল ছিলেন। তার বাড়ি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানার বুজরকের সনোষপুর গ্রামে। পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-গণমাধ্যম) সোহেল রানা বলেন, জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে গিয়ে দায়িত্ব পালনকালে এখন পর্যন্ত পুলিশের ৩৭ জন সদস্য জীবন উৎসর্গ করেছেন। করোনায় পুলিশের যে ৩৭ সদস্য মারা গেছেন, তাদের ১৩ জনই ডিএমপির।  গতকাল পুলিশ সদর দফতর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তৌহিদুল ইসলাম স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানসহ আত্মীয়-স্বজন ও বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। পুলিশ সদর দফতর জানায়, বাংলাদেশ পুলিশের ব্যবস্থাপনায় তৌহিদুলের লাশ কার গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়। সেখানে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
পুলিশে আক্রান্ত ১০ হাজার ছুঁই ছুঁই: বাংলাদেশ পুলিশের মোট ৯ হাজার ৮৬৯ জন সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার এই সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ৫৭৮। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় পুলিশ বাহিনীতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৯১ জন। সংক্রমণের শুরু থেকে একক পেশা হিসেবে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন পুলিশের সদস্যরা।  সর্বশেষ গতকাল শুক্রবার বিকেলের তথ্য অনুযায়ী, চলমান করোনাযুদ্ধে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশে কর্মরত ও সংযুক্ত মোট ৩৭ সদস্য মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনায় আক্রান্ত বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যদের মধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ২ হাজার ১৩ জন সদস্য রয়েছেন। সুচিকিৎসা ও সুনিবিড় পরিচর্যায় রোববার পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশের ৫ হাজার ৭৯৪ জন পুলিশ সদস্য করোনাজয় করে সুস্থ হয়েছেন। পুলিশে গতকাল পর্যন্ত মোট ৪ হাজার ১৮৮ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৯ হাজার ৪ জন পুলিশ কর্মকর্তা।
পুলিশ সদর দফতর জানায়, পুলিশ সদস্যদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি কমাতে মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদের নির্দেশে বিভিন্ন ধরনের প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে আক্রান্ত পুলিশদের জন্য সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করতে বেসরকারি হাসপাতাল ভাড়া করাসহ সকল পুলিশ হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ উন্নত চিকিৎসা সরঞ্জামাদি সংযোজন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ