শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রক্তপাতের পরেও চীনা কম্পানিই আইপিএলের টাইটেল স্পনসর

সম্প্রতি হুট করেই লড়াই লেগে গিয়েছিল ভারত আর চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে। এরপর থেকে ভারতে চীনা পণ্য বর্জনের ডাক জোরদার হয়েছে। কিন্তু এই অবস্থাতেও ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) টাইটেল স্পনসর হিসেবে থাকছে চীনা কম্পানি ভিভো। বিসিসিআই মনে করছে, চীনের সংস্থা থেকে আসা অর্থ ভারতীয় অর্থনীতিকেই চাঙ্গা করবে। সুতরাং আবেগ দিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না। ভারতীয় বোর্ডের সঙ্গে ২০২২ সাল পর্যন্ত ভিভোর সঙ্গে চুক্তি আছে। প্রত্যেক বছর ভিভোর থেকে বিসিসিআই আয় করে ৪৪০ কোটি রুপি।  চীনের কম্পানি আইপিএলের জন্য অর্থ ব্যয় করলে তাতে দেশেরই লাভ বলে মনে করেন বিসিসিআইয়ের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমল। তিনি বলেছেন, ‘আবেগ দিয়ে ভাবলে অনেক সময়ই যুক্তিকে গুরুত্ব দেয়া হয় না। আমাদের বুঝতে হবে যে, চীনের স্বার্থে চীনের সংস্থাকে সাহায্য করা আর ভারতের স্বার্থে চীনের অর্থনীতির সাহায্য নেওয়ার মধ্যের পার্থক্য আছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘চীনের অর্থ যখন ভারতীয় ক্রিকেটের কাজে লাগছে, তখন তা মেনে নেওয়া উচিত। আমিও কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে চীনের পণ্য বর্জনের পক্ষে। চীনের কম্পানির থেকে স্পনসরশিপ এনে আমরা এখানে সরকারকে সাহায্য করছি, ভারতের স্বার্থ রক্ষা করছি। অন্য দেশের সংস্থার থেকেও আমরা স্পনসরশিপ পেতে পারি। কিন্তু চীনের কম্পানি যখন এখানে পণ্য বিক্রি করছে, তখন সেই অর্থের কিছুটা ভারতীয় অর্থনীতিতে ফিরে আসাই ভালো। বিসিসিআই চীনে কোনো অর্থ খরচ করছে না। বরং তার উল্টোটা ঘটছে। তাই আবেগ নয়, যুক্তির মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।’ ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ