মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চলে গেলেন দেশের বাঁহাতি স্পিনের অগ্রদূত রামচাঁদ গোয়ালা

স্পোর্টস রিপোর্টার: না ফেরার দেশে চলে গেলেন জাতীয় ক্রিকেট দলের বাঁহাতি স্পিনের অগ্রদূত কিংবদন্তি ক্রিকেটার রামচাঁদ গোয়ালা। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন তিনি। বছর খানেক আগের স্ট্রোকে আরও দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন। গতকাল ভোরে মংমনসিংহ শহরে নিজ বাড়িতে বার্ধক্যজনিত কারণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। ঢাকার ক্লাব ক্রিকেট রাঙিয়েছেন তিনি দারুণ পারফরম্যান্সে। খেলেছেন ভিক্টোরিয়া, মোহামেডান ও আবাহনীর মতো ক্লাবে। আবাহনীর সঙ্গে তার সম্পর্কটা অন্যরকম। তিনি আসলে হয়ে উঠেছিলেন আবাহনীর প্রতীক, ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিতে রামচাঁদ খেলেছেন আশির দশকের শুরু থেকে নব্বইয়ের দশকের শুরু পর্যন্ত। জাতীয় দলের জার্সিতেও খেলেছেন, কিন্তু আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য হয়নি তার। কিন্তু তার বাঁহাতি বোলিংয়ের আলো ঠিকই ছড়িয়ে পড়েছিল বাংলাদেশে। এনামুল হক মনি, মোহাম্মদ রফিক হয়ে সাকিব, এরপর... আরো অনেকে। বাঁহাতি স্পিনের বীজটা বুনে দিয়েছিলেন এই রামচাঁদই। ১৯৪১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহে জন্ম নেন গোয়ালা। ময়মনসিংহ ক্রিকেটে নজর কাড়া এই স্পিনার আবাহনীতে যোগ দেন আশির দশকের একদম শুরুতে। ঢাকায় ক্রিকেটে তখন পেসারদের দাপট। নারিকেলের ছোবড়া দিয়ে তৈরি উইকেটে স্পিনাররা খুব একটা সুবিধা পেত না। তবুও বাঁহাতি স্পিনে মুগ্ধ করেছিলেন লম্বা গড়নের এই ক্রিকেটার। আশির দশকের শুরু থেকে নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি পর্যন্ত টানা প্রায় ১৫ বছর খেলেছেন দেশের ঐতিহাসিক ক্লাব আবাহনীতে। দেশীয় ক্রীড়াঙ্গনে আলাদা খ্যাতি ছিল বর্ষিয়ান এই ক্রিকেটারের। ক্রিকেট ছাড়ার পরও ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কার্যক্রমে যুক্ত ছিলেন গোয়ালা। যতদিন সুস্থ ছিলেন ময়মনসিংহে ফিরে গিয়ে তরুণ ক্রিকেটারদের গড়ে তোলার কাজে ধ্যান-জ্ঞান সব নিয়োগ দিয়েছিলেন। প্রায় ৫০ বছর লিগ ক্রিকেট খেলা রামচাঁদ গোয়ালা ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও শ্রীলংকা টেস্ট দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ১৯৮৪ সালে পশ্চিমবঙ্গ সফর করেছেন, শ্রীলংকার বিপক্ষে খেলেছেন ১৯৮৫ সালে। তবে বর্ষিয়ান এই ক্রিকেটার কিংবদন্তি হয়েছেন আবাহনীতে খেলে। ক্রিকেটকে ভালোবেসে বিয়ে আর করেননি, একাই কাটিয়ে দিয়েছেন জীবন। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনেক কিছু দিলেও আড়ালেই থেকেছেন সবসময়। যেখান  থেকে ক্রিকেট জীবন শুরু করেছিলেন, সেই ময়মনসিংহের সার্কিট হাউজ মাঠে কাটিয়ে দিয়েছেন জীবনের শেষ দিনগুলো। দেশ বরেণ্য ক্রিকেটার রামচাঁদ গোয়ালার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি। বিসিবি’র মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, ‘রামচাঁদ গোয়ালা যখন প্রথম বাংলাদেশ জাতীয় দলে ডাক পান, তখন তার বয়স ৪০ বছর পেরিয়ে গিয়েছিল। তিনি ৫৩ বছর বয়সেও ক্লাবের হয়ে খেলছিলেন। তিনি ফিটনেস এবং ক্রিকেটের প্রতি আবেগের একটি উদাহরণ ছিলেন। সেই সঙ্গে ছিলেন কর্তব্যপরায়ণ। এখনকার ক্রিকেটারদের তার পদচারণা অনুসরণ করা উচিৎ।’ ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কিংবদন্তি এই ক্রিকেটারের আত্মার শান্তিকামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমেবেদনা জ্ঞাপন করেছে। পাশাপাশি দেশের ক্রিকেটের তার অবদানের কথাও তুলে ধরা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ