ঢাকা, শনিবার 4 July 2020, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ৩ আচার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: মুখের স্বাদ ও মনের প্রশান্তির জন্য উপমহাদেশে আচারের কদর অনেক। কিন্তু জানেন কি এটি শুধু স্বাদের কারণে নয় স্বাস্থ্যের দিক দিয়েও বেশ উপকারী। চলুন এমন তিনটি আচার সম্পর্কে জেনে নিই যেগুলো আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

আমলকির আচার

আমলকি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জনপ্রিয় একটি ফল। এটি রক্তকে পরিশুদ্ধ করে মৌসুমী রোগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে। এছাড়া ত্বক ও চুলের জন্যও অত্যন্ত উপকারী আমলকি। আমলকির আচার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে দুর্দান্ত ভূমিকা পালন করে।

রেসিপি-উপকরণ:

বড় আকারের আমলকি আধা কেজি, সরিষার তেল দেড় কাপ, লবণ স্বাদমতো, চিনি ২ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১ চা চামচ, শুকনা মরিচ বাটা ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়া ১ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ।

প্রণালি:

আমলকি ধুয়ে পানি মুছে নিতে হবে। আমলকির চার টুকরো করে কেটে নিতে হবে। হলুদ ও লবণ মেখে রোদে হালকা শুকিয়ে নিন। এরপর প্যানে তেল দিয়ে তাতে পাঁচফোড়ন দিতে হবে। তার ভেতর আমলকি দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়তে হবে। এরপর লবণ, চিনি ও সব মসলা দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে আমলকি নরম হলে নামিয়ে নিন। দুই তিনদিন রোদে দিয়ে বয়ামে ভরে সংরক্ষণ করতে পারেন দীর্ঘদিন।

লেবু আদার

আচারলেবু আদার আচার মশলাদার স্বাদের একটি নিখুঁত সংমিশ্রণ। এটি কেবল হজমে উন্নতি করে না, দীর্ঘমেয়াদে একটি শক্তিশালী বিপাক তৈরিতে সহায়তা করে। হলুদের উপস্থিতি স্বাস্থ্যগুণকে আরও বাড়িয়ে তোলে।

রেসিপি-উপকরণ:

মাঝারি লেবু ৪টি। বড় রসুন ১টি। শুকনা-মরিচ ৩,৪টি। লবণ ২ চা-চামচ। ভিনিগার ও সরিষার তেল প্রয়োজন মতো।

প্রণালি:

লেবু কেটে রস বের করে ভেতরের কোয়াসহ পাতলা আবরণটি উঠিয়ে ফেলুন। কাটালেবু আপনার পছন্দ মতো টুকরা করে নিন।

রসুন ছিলে পাতলা করে কোয়াগুলো কেটে নিন। শুকনামরিচগুলো রিং করে কেটে দানা ফেলে রাখুন। লেবু, রসুন ও লবণ মিশিয়ে একটি ওভেন প্রুফ বাটিতে নিয়ে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে মাইক্রো-হাই পাওয়ারে ঢাকনা দিয়ে পাঁচ মিনিট গরম করে নিন (আমরা খাবার গরম করি যেভাবে, সেইভাবেই)। গরম হয়ে গেলে ওভেন থেকে বের করে ঠাণ্ডা হতে দিন।

একটি কাঁচের জার বা বয়ামে প্রথমে লেবু-রসুনের মিশ্রণ ঢুকিয়ে তারপর ভিনিগার দিন। ভিনিগারের উপর সরিষার তেল ঢেলে, এর ওপর শুকনামরিচের রিং দিয়ে বয়ামের মুখটি আটকে রাখুন। লেবু নরম হলে ভাত, খিচুড়ি কিংবা পোলাওয়ের সাথে পরিবেশন করুন।

খেজুরের আচার

খেজুর মিষ্টি স্বাদের অত্যন্ত পুষ্টিকর একটি ফল। তবে এটির স্বাদ আরও বাড়াতে নানা রকম রেসিপি যুক্ত হয়েছে। খেজুর কেবল অনন্য স্বাদের জন্যই নয়, আয়রন, ফাইবার, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং জিঙ্কের দুর্দান্ত উৎস। খেজুরের আচারও তেমন একটি খাবার, যা স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে তুলবে।

রেসিপি-উপকরণ :

খেজুর ২৫০ গ্রাম, সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ, টেলে নেওয়া জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, তেঁতুলের রস ১ কাপ, বিট লবণ পরিমাণ মতো, চিলি ফ্লেক্স ১ চা চামচ, চিনি আধা কাপ, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি :

প্রথমে খেজুর ধুয়ে মাঝ বরাবর চিরে বিচি বের করে নিতে হবে। এবার চুলায় প্যান বসিয়ে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিয়ে তেঁতুলের রস, বিট লবণ, জিরা গুঁড়া, চিলি ফ্লেক্স, চিনি দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে নিতে হবে, যাতে তেঁতুলের রসের পানি পুরোপুরি শুকিয়ে যায়। এবার খেজুর দিয়ে নেড়ে মসলার সঙ্গে মিশিয়ে নামিয়ে ফেলতে হবে। খেজুর দিয়ে বেশিক্ষণ চুলায় রাখা যাবে না।-ঢাকা টাইমস

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ