মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিতর্কিত ‘ভারতীয় ভূখণ্ড’ অন্তর্ভুক্ত করে মানচিত্র পাস নেপাল সংসদে

স্টাফ রিপোর্টার: দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নেপাল সংসদে পাস হলো সংবিধান সংশোধনী বিল। গতকাল শনিবার নেপালের সংসদের নিম্নকক্ষে ২৭৫ আসন বিশিষ্ট নেপাল সংসদে এই বিলের পক্ষে ভোট পড়ে ২৫৮টি। কাঠমান্ডু এই সংশোধনীতে ভারতীয় ভূখণ্ডকে মানচিত্রে ঠাঁই দিয়েছে বলে অভিযোগ ভারতের। কূটনীতিবিদদের আশঙ্কা, এই বিল পাস হওয়ায় আরও বাড়বে ইন্দো-নেপাল কূটনৈতিক উত্তেজনা।
গত মাসেই নেপাল সরকার সংশোধিত মানচিত্রে সিলমোহর বসিয়েছে। যে সিদ্ধান্ত ঘিরে ইতোমধ্যে উষ্মা প্রকাশ করেছে নয়াদিল্লী। মূলত কালি নদীর উত্তর-পূর্ব এলাকা বিতর্কিত। ভারতের দাবি, ওই এলাকার লিপুলেখ পাস উত্তরাখণ্ডের। পাশাপাশি লিম্পিয়াধুরা আর কালাপানি এলাকা সেই ১৯৬২ থেকে ভারতের সীমানার অংশ বরাবর দাবি করেছে ভারত। কিন্তু সংশোধিত মানচিত্রে এই এলাকাগুলো নিজেদের বলে মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করেছে নেপাল।
সংবাদ সংস্থা সূত্রের বরাতে খবরে বলা হয়েছে, সংবিধান সংশোধনী এই বিল পাস করতে বিশেষ অধিবেশন আহ্বান করে নেপাল। এই অধিবেশনে ভারতীয় ভূখণ্ডকে নিজেদের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করতে আনা সংশোধনের ওপর ভোটাভুটি হয়। বিলটি পাস করাতে খুব ঝামেলায় পড়তে হয়নি সরকারকে। বিরোধী দল নেপাল কংগ্রেস বিলের সমর্থনে সম্মতি দিয়েছে।
নেপালি সংসদে বিলটি পাস হওয়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে ভারত এখন পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে এক ভারতীয় কর্মকর্তা হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেছেন, সীমান্ত বিরোধ ও ভারতবিরোধী মনোভাব বৃদ্ধির উদ্যোগে নেপাল সরকারের কাছে নোট পাঠিয়েছে নয়াদিল্লী। সীমান্ত নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই শুক্রবার সীতামারীতে নেপাল সীমান্ত পুলিশের গুলিতে নিহত এক ভারতীয় ও দু’জন গুলীবিদ্ধ হয়। এই ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে দিল্লী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ